বাংলাদেশকে উন্নয়নের রোল মডেলে পরিণত করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা : পলক

মঙ্গলবার, সেপ্টেম্বর ২৮, ২০২১

ঢাকা : তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেছেন একজন সুযোগ্য সন্তান হিসেবে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্ন একের পর এক পূরণ করে বাংলাদেশকে উন্নয়নের রোল মডেল, অনুকরণীয় ও অনুসরণীয় দৃষ্টান্তে পরিণত করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

তিনি বলেন একটি দরিদ্র, দুর্নীতিগ্রস্থ ও সন্ত্রাসী রাষ্ট্রকে মাত্র ১২ বছরের মধ্যে দুর্নীতিমুক্ত, প্রযুক্তি নির্ভর, অসাম্প্রদায়িক, প্রগতিশীল ও মর্যাদাশীল মধ্যম আয়ের রাষ্ট্রে পরিণত করেছেন।

প্রতিমন্ত্রী আজ শাহবাগে পাবলিক লাইব্রেরি চত্বরে “হাসুমণির পাঠশালার” উদ্যোগে বঙ্গবন্ধুকন্যা, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী “মুকুটমণি শেখ হাসিনা’র ৭৫ তম জন্মদিনে” প্রসূন শ্রদ্ধা- শিল্পকর্ম প্রদর্শনী- গোলটেবিল আলোচনায় উদ্বোধক হিসেবে বক্তৃতাকালে এসব কথা বলেন।

বারবার মৃত্যুর মুখোমুখি দাঁড়িয়ে জীবনের ৭৪টি ঝড়ো বসন্ত পেরিয়ে আজ ৭৫-এ পা দিলেন জননেত্রী শেখ হাসিনা। ছাত্রজীবন থেকে পিতার হাত ধরে রাজনীতিতে হাতেখড়ি। পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবের রাজনীতিকে ছায়ার মতো অনুসরণ করেই রাজনীতির দীক্ষা নিয়েছিলেন তিনি। পাকিস্তানি শাসকগোষ্ঠীর স্বৈরশাসনে বঙ্গবন্ধুকে বারবার কারাবরণ করতে হয়েছিল। মায়ের সঙ্গে জেলখানায় পিতাকে দেখতে যেতে যেতে এক কঠিন সংগ্রামী ও দৃঢ়চেতা হয়ে উঠেছিলেন তিনি।

প্রতিমন্ত্রী বলেন বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত দুটি বিপ্লব অর্থনৈতিক ও সাংস্কৃতিক বিপ্লব সফল করছেন বঙ্গবন্ধুর কন্যা হাসুমণি তরুণদের প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা, আদর্শ এবং দর্শন গুলোকে যদি আমরা আমাদের জীবনে ও কর্মে পালন করতে পারি তবেই তার জন্মদিনের শুভেচ্ছা এবং ভালবাসা সঠিক বহি:প্রকাশ করা সম্ভব হবে। তিনি আরও বলেন প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনে নিষ্ঠা ও আন্তরিকতার সাথে দেশের উন্নয়নে কাজ করার শপথ নিতে হবে।

বাংলাদেশ আওয়ীমী লীগের কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য, হাসুমণি পাঠশালার সভাপতি মারুফা আক্তার পপির সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মাঈনুদ্দীন হাসান চৌধুরী, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিল্ম এন্ড টেলিভিশন বিভাগের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান অধ্যাপক জুনায়েদ হালিমসহ প্রমুখ। অনুষ্ঠানের মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মশিউর রহমান।