কামরাঙ্গীরচরে মা-মেয়ের অস্বাভাবিক মৃত্যু, আটক ২

শনিবার, জুলাই ২৪, ২০২১

ঢাকা : কামরাঙ্গীরচরে মা-মেয়েসহ দুইজনের অস্বাভাবিক মৃত্যু হয়েছে। মৃতরা হলেন, মা ফুল বাসি চন্দ্র দাস (৩৪) ও সুমি চন্দ্র দাস (১২)।

এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সন্দেহভাজন হিসেবে পুলিশ ফুল বাসি’র স্বামী মুকুন্দ চন্দ্র দাস (৩৬) ও তার বড় মেয়ে ঝুমা রানী দাসকে (১৪) আটক করেছে।

পুলিশ জানিয়েছে, মুকুন্দ চন্দ্র ভ্যানগাড়িতে করে সবজি বিক্রি করতেন। মাঝে মাঝে তিনি ঠেলা গাড়িও চালাতেন।

ধারণা করা হচ্ছে, শুক্রবার দিবাগত রাতের কোনো এক সময় শ্বাসরোধ করে ফুল বাসি ও মেয়ে সুমি চন্দ্র দাসকে হত্যা করা হয়ে থাকতে পারে। সুরতহাল শেষে মরদেহ দুটি ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হবে।

কামরাঙ্গীরচর থানার উপ-পরিদর্শক(এসআই) জহুরুল ইসলাম জানান, খবর পেয়ে আজ ভোর সাড়ে ৫টার দিকে ঘটনাস্থল থেকে আমরা মরদেহ দুটি উদ্ধার করি।

পরিবার ও প্রতিবেশীদের বরাতে তিনি বলেন, বড় মেয়ে ঝুমা ভোর পাঁচটার দিকে ঘুম থেকে উঠে মা এবং বোনকে অচেতন অবস্থায় দেখে চিৎকার শুরু করে।

চিৎকার শুনে প্রতিবেশীরা ঘরে এসে দেখেন মা-মেয়ে অচেতন অবস্থায় পড়ে আছেন। পরে পুলিশকে খবর দেয়।

সিআইডি’র ক্রাইম সিন ইউনিট আলামত সংগ্রহ করেছে। মরদেহের সুরতহাল শেষে ময়নাতদন্তের জন্য ঢামেক পাঠানো হবে বলে জানান তিনি।

এদিকে কামরাঙ্গীরচর থানার ডিউটি অফিসার আবুল কালাম আজাদ জানান, দুই জনের রহস্যজনক মৃত্যুর ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সন্দেহভাজন হিসেবে ফুল বাসি’র স্বামী মুকুন্দ চন্দ্র দাস ও বড় মেয়ে ঝুমা রানী দাসকে পুলিশ হেফাজতে নেওয়া হয়েছে। এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।