বাংলাবান্ধা স্থলবন্দরে সরকারি নির্দেশনা না মানায় তিন সিএন্ডএফ প্রতিনিধিকে অর্থদন্ড

বুধবার, জুলাই ২১, ২০২১

ডিজার হোসেন বাদশা, পঞ্চগড় প্রতিনিধি : পঞ্চগড়ের বাংলাবান্ধা স্থলবন্দরে বৈদেশিক বাণিজ্যিক কার্যক্রম পরিচালনায় সরকারি নির্দেশনা না মানায় তিন সিএন্ডএফ প্রতিনিধিকে এক লক্ষ ত্রিশ হাজার টাকা অর্থদন্ড প্রদান করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (২০ জুলাই) বিকেলে বাংলাবান্ধা স্থলবন্দর এলাকায় ভ্রাম্যমাণ আদালতে এই জরিমানা করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট সোহাগ চন্দ্র সাহা।

জানা গেছে, করোনা ভাইরাসের সংক্রমন রোধকল্পে সার্বিক চলাচলে বিধি নিষেধ আরোপ করা হয়েছে।

বিধি নিষেধকালীন সরকারি নির্দেশনা মোতাবেক যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি এবং স্ট্যান্ডার্ড অপারেটিং প্রসিডিউর (এসওপি) অনুযায়ী স্থলবন্দর দিয়ে বৈদেশিক বাণিজ্য কার্যক্রম চালু রাখা হয়েছে।

উক্ত সরকারি নির্দেশনা অমান্য করে গত সোমবার (১৯ জুলাই) বাংলাবান্ধা স্থলবন্দর দিয়ে ৪৩ টি আমদানীকৃত পণ্যবাহী বিদেশী ট্রাক দিনের মধ্যে পণ্য খালাস পূর্বক ভারতে ফেরত না পাঠিয়ে অবস্থান করে রাখার দায়ে মঙ্গলবার (২০ জুলাই) বিকেলে ভ্রাম্যমান আদালতে তিন সিএন্ডএফ প্রতিনিধিকে এক লক্ষ ত্রিশ হাজার টাকা অর্থদন্ড প্রদান করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট সোহাগ চন্দ্র সাহা।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান জনাব কাজী মাহমুদুর রহমান ডাবলু, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. পলাশ চন্দ্র সাহা, তেঁতুলিয়া মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু ছায়েম মিয়া, বাংলাবান্ধা স্থলবন্দর আমদানী-রপ্তানী গ্রুপের সভাপতি ও বাংলাদেশ কৃষক লীগের সহ-সভাপতি আব্দুল লতিফ তারিন, বাংলাবান্ধা স্থলবন্দর আমদানী-রপ্তানী গ্রুপের সাধারণ সম্পাদক ও বাংলাবান্ধা ইউপি চেয়ারম্যান কুদরত-ই-খুদা মিলনসহ বাংলাবান্ধা ল্যান্ডপোর্ট, স্থল শুল্ক স্টেশন ও সিএন্ডএফ এসোসিয়েশনের প্রতিনিধিগণ।

উল্লেখ্য, চলমান করোনা পরিস্থিতিতে বাংলাবান্ধা স্থলবন্দর হতে করোনা (কোভিড-১৯) ভাইরাসের সংক্রামক জীবানুর বিস্তার ঘটার সমূহ সম্ভাবনা থাকায় সংক্রামক রোগ (প্রতিরোধ, নিয়ন্ত্রণ ও নির্মূল) আইন, ২০১৮ মোতাবেক জনস্বাস্থ্য সংক্রান্ত জরুরি অবস্থা মোকাবেলা এবং স্বাস্থ্যগত ঝুঁকি হ্রাসকরণের লক্ষে সচেতনতা বৃদ্ধি, সংক্রামক রোগ প্রতিরোধ, নিয়ন্ত্রন ও নির্মূলের উদ্দেশ্যে প্রণীত আইন অনুযায়ী এবং সরকারি নির্দেশনা মোতাবেক বাংলাবান্ধা স্থলবন্দরের কেপিআই এলাকায় অবস্থিত বিদেশী পণ্যবাহী ট্রাক এবং ট্রাক চালকগণকে জরুরি ভিত্তিতে দুপুর ২.০০ ঘটিকার মধ্যে পণ্য খালাস করে বিদেশে ফেরত প্রদানের জন্য সংশ্লিষ্ট সিএন্ডএফ এজেন্ট/প্রতিনিধিদেরকে নোটিশের মাধ্যমে নির্দেশ প্রদান করা হয়।

সিএন্ডএফ প্রতিনিধিগণ নির্ধারিত সময়ের মধ্যে পণ্য খালাস ও ট্রাক সমূহ ভারতে ফেরত পাঠাথে ব্যর্থ হওয়ায় ঘটনাস্থলে উপস্থিত সিএন্ডএফ প্রতিনিধি মেসার্স রেজাউল করিম এন্টার প্রাইজের রেজাউল করিম রেজাকে ১৫ হাজার, মেসার্স প্রহর ইন্টারন্যাশনালের জাহাঙ্গীর আলমকে ৭৫ হাজার এবং সেতু এন্টার প্রাইজের নাহিরুল ইসলামকে ৪০ হাজার টাকা অর্থদন্ড প্রদান করা হয়।

পবিত্র ঈদ উল আযহার ছুটি থাকায় যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত পূর্বক বিদেশী ট্রাক চালকগণকে বন্দর ইয়ার্ডের নির্দিষ্ট স্থানে অবস্থান নিশ্চিত করত: আগামী ৩ দিনের মধ্যে পণ্য খালাস করার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন মর্মে অঙ্গীকারনামা প্রদান করেন।