নজরদারি প্রযুক্তির অপব্যবহার, জাতিসংঘ মানবাধিকার কমিশনারের উদ্বেগ

বুধবার, জুলাই ২১, ২০২১

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : অ্যাক্টিভিস্ট, ব্যবসা নির্বাহী ও সাংবাদিকদের ব্যবহৃত স্মার্টফোন হ্যাকিং সম্পর্কিত স্পাইওয়ার রিপোর্টের ভিত্তিতে নজরদারি প্রযুক্তির ব্যবহারের বিষয়ে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন জাতিসংঘ মানবাধিকার বিষয়ে হাই কমিশনার।

বাচেলেট বলেছেন, এ ধরণের অবৈধ প্রযুক্তির ব্যবহার জনগণের মানবাধিকার লঙ্ঘন করবে এবং গণতান্ত্রিক সমাজকে ঝুঁকির মুখে ফেলবে।

এটা এখনো স্পষ্ট নয়, ইসরাইলের এসএসও গ্ৰুপের উদ্ভাবিত ও বিক্রি করা পেগাসাস স্পাইওয়ার সাংবাদিক, মানবাধিকার প্রবক্তা, বিরোধী রাজনৈতিক ও অন্যদের ওপর কতটুকু ব্যবহার করা হয়েছে। তবে হাইকমিশনার বাচেলেট জানান, ৫০ হাজার লোককে হ্যাক করা হয়েছে, যাকে তিনি অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ বলে উল্লেখ করেন।

হাই কমিশনারের মুখপাত্র রুপার্ট কোলভিল এই নতুন উদ্ভাবিত প্রযুক্তিকে অত্যন্ত বিপদজ্জনক উল্লেখ করে বলেন, এটি বৃহত্তর ঝুঁকির একটি ক্ষুদ্র অংশ মাত্র। তিনি ভয়েস অব আমেরিকাকে জানান, যাদের ফোন হ্যাক করা হয়েছে, তারা ইসলামী স্টেট সন্ত্রাসী বা অপরাধী ব্যক্তিরা নন ; এরা সাংবাদিক, মানবাধিকার সক্রিয়বাদী এবং বৈধ কর্মকাণ্ডে নিয়োজিত মানুষ।