অ্যাপেন্ডিসাইটিসের ব্যথা চেনার ‍উপায়

বুধবার, জুলাই ১৪, ২০২১

স্বাস্থ্য ডেস্ক : পেটে ব্যথা আমাদের কাছে সাধারণ একটি অসুখ। তবে কোনো কারণ ছাড়া এই ব্যথা হয় না। পেটে ব্যথার পেছনে যেসব কারণ থাকতে পারে তার মধ্যে একটি হলো অ্যাপেন্ডিসাইটিস।

অ্যাপেন্ডিক্স হচ্ছে সিকাম এর (বৃহদন্ত্রের শুরুতে একটি একদিক খোলা থলি) সঙ্গে যুক্ত সরু নলের মত অঙ্গ, যা বৃহদন্ত্রের একটি অংশ। এটি পেটের নিচের ডান দিকে থাকে। আমাদের শরীরে অ্যাপেন্ডিক্স এর সঠিক ভূমিকা অজানা, কিন্তু অন্যান্য প্রাণীদের ক্ষেত্রে এটি হজমে সাহায্য করে।

অ্যাপেন্ডিক্স এর সরু নল মল অথবা খাবারে বন্ধ হয়ে গেলে এটি ফেটে যেতে পারে এবং ভেতরের বস্তুগুলো চারপাশের পৈটিক টিস্যুগুলিতে ছড়িয়ে যেতে পারে। ফলে সংক্রমণ ঘটতে পারে। এরকম ক্ষেত্রে এই সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণ করা জরুরি।

অ্যাপেন্ডিসাইটিসের লক্ষণ কী?

অ্যাপেন্ডিসাইটিসের মূল লক্ষণ হলো পেটে ব্যথা। চিকিৎসকদের মতে, শরীরের ডান দিকে অ্যাপেন্ডিক্স থাকলেও ব্যথার সূত্রপাত কিন্তু সেদিক থেকে না-ও হতে পারে। এই ব্যথা সাধারণত নাভির চারপাশ থেকে শুরু হয়। এরপর সেই ব্যথা ডান দিকে ছড়াতে থাকে। সেইসঙ্গে বমি, জ্বর বা পেট খারাপ হতে পারে।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, সবার অ্যাপেন্ডিক্স এক জায়গায় থাকে না। কারও ক্ষেত্রে ক্ষুদ্রান্ত্র, বৃহদন্ত্রের জাংশনের নিচের দিকে ঝুলতে পারে, কারও ক্ষেত্রে খাদ্যনালির পেছনে থাকে। আবার কারও ক্ষেত্রে অ্যাপেন্ডিক্স লিভারের নিচেও চলে আসতে পারে। এরকম হলে ব্যথা লিভারের ঠিক নিচে শুরু হতে পারে।

অ্যাপেন্ডিসাইটিসের ব্যথা কীভাবে বুঝবেন?

অ্যাপেন্ডিক্স হলে ব্যথা শুরু হবে প্রথমে তল পেটের ডান দিকে। এরপর ধীরে ধীরে সেই ব্যথা নাভির চারপাশে ছড়িয়ে পড়ে। এরপর তলপেট ফুলে ওঠে। শুরুর দিকে ব্যথা কিন্তু ততটা অনুভূত হয় না। এরপর ব্যথা বাড়তে থাকে। খাবার খাওয়ার পরপরই ব্যথা বেড়ে যায়।

অ্যাপেন্ডিসাইটিসের ব্যথা হলে সাধারণ ক্ষেত্রে জ্বর আসতে পারে। তবে সবার এই সমস্যা না-ও হতে পারে। শরীরের তাপমাত্রা বাড়তে বা কমতে পারে।

খাবারে অনীহা হতে পারে অ্যাপেন্ডিসাইটিসের অন্যতম লক্ষণ। দেখা দিতে পারে হজমে সমস্যা। সেইসঙ্গে শুরু হতে পারে বমিও। কারও কারও ক্ষেত্রে পেট খারাপ হতে পারে। চলাফেরা করার সময় ব্যথা অনুভূত হতে পারে। এ ধরনের কোনো লক্ষণ দেখা দিলে অবহেলা না করে দ্রুত চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।