ফেসবুকে ভিডিও ভাইরাল ৯ বছরের শিশুকে গাছে বেঁধে নির্যাতন

বৃহস্পতিবার, জুন ১০, ২০২১

ঢাকা : ” মোবাইল চুরির অপবাদে মো. রিফাত নামে নয় বছরের শিশুকে গাছে বেঁধে নির্যাতনের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে (ফেইসবুকে) ভাইরাল হওয়ার পর জড়িত দুইজনকে আটক করেছে গৌরীপুর থানার পুলিশ।

আটককৃতরা হলেন- ডৌহাখলা ইউনিয়নের তাতকুড়া গ্রামের মৃত আব্দুল বারেকের স্ত্রী ফাতেমা বেগম (৪২) ও ফাতেমার ছেলে মো.হিমেল (২৫)।

নির্যাতনের শিকার রিফাত রামগোপালপুর ইউনিয়নের মধুবন আদর্শ গ্রামের (গুচ্ছ গ্রাম) সুরুজ মিয়ার ছেলে। সে স্থানীয় রামগোপালপুল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দ্বিতীয় শ্রেণীতে পড়াশুনা করে।

গত শুক্রবার (৪ জুন) দুপুরে রামগোপালপুর ইউনিয়নের মধুবন আদর্শ গ্রামের (গুচ্ছ গ্রাম) এ ঘটনা ঘটে। তবে, বিষয়টি স্থানীয়দের মাঝেই গোপন থাকে। পরে নির্যাতনের ভিডিওটি বৃহস্পতিবার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে (ফেইসবুক) শেয়ার দিলে জানাজানি হয়।

নির্যাতনের শিকার রিফাতের বাবা সুরুজ মিয়া বলেন, গতমাসের শেষ সপ্তাহে ফাতেমা বেগমের ভাইয়ের স্ত্রী রিফাতকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে গাছ থেকে আম পেড়ে দিতে বলে। পরে রিফাত আম পাড়ার জন্য গাছে উঠলে ফাতেমা ও তার ছেলে হিমেল রিফাতকে পিটিয়ে পিটিয়ে গাছ থেকে নামায়। এরপর থেকে রিফাত সপ্তাহখানেক জ্বরে ভোগে।

তিনি আরও জানান, জ্বর কিছুটা সেরে উঠলে গত শুক্রবার (৪ জুন) আমি বাড়িতে না থাকায় ফাতেমার ছেলে হিমেল রিফাতকে বাড়ি থেকে নিয়ে গাছের সাথে গরুর রশি দিয়ে বেঁধে মারধর করে। পরে আমি বাড়ি ফিরে তাদের বাড়ি থেকে রশি খুলে রিফাতকে বাড়িতে নিয়ে আসি। এরপর গ্রামের গণ্যমান্য ব্যক্তিদের জানালে বিচারের আশ্বাস দেয়।

গৌরীপুর থানার ওসি আব্দুল হালিম সিদ্দিকী বলেন, মোবাইল চুরির অপবাদ দিয়ে মো. রিফাত নামে নয় বছরের শিশুকে গাছে বেঁধে নির্যাতনের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে (ফেইসবুকে) ভাইরাল হওয়ার পরপরেই বৃহস্পতিবার (১০ জুন) সন্ধ্যার পর বাড়ি থেকে ওই দুইজনকে আটক করে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে।