১৯ ইউনিটের চেষ্টায় কেমিক্যাল গোডাউনের আগুন নিয়ন্ত্রণে, নিহত ২

শুক্রবার, এপ্রিল ২৩, ২০২১

ঢাকা: ফায়ার সার্ভিসের পরিচালক (অপারেশন অ্যান্ড মেইনটেন্যান্স) লেফটেন্যান্ট কর্নেল জিল্লুর রহমান দুজনের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

ফায়ার সার্ভিসের ১৯টি ইউনিটের প্রায় তিন ঘণ্টার চেষ্টায় আরমানিটোলার একটি আবাসিক ভবনে রাসায়নিকের গুদামের আগুন নিয়ন্ত্রণে এসেছে। আগুনে দুইজনের মৃত্যু হয়েছে। আহত হয়েছেন ফায়ার সার্ভিসের তিনকর্মীসহ অন্তত ১৭ জন।

হতাহতের বিষয়টি নিশ্চিত করেন ফায়ার সার্ভিসের পরিচালক (অপারেশন অ্যান্ড মেইনটেন্যান্স) লেফটেন্যান্ট কর্নেল জিল্লুর রহমান। তিনি জানান, নিহত দুইজনের একজন পুরুষ, অপরজন নারী। তাদের পরিচয় বিস্তারিত জানা যায়নি। আর আহতদের ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল ও মিডফোর্ড হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

ফায়ার সার্ভিসের মহাপরিচালক বিগ্রেডিয়ার জেনারেল সাজ্জাদ হোসেন জানান, শনিবার সকাল সোয়া ছয়টার দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। এখন আর আগুন বাড়ার কোনো সম্ভাবনা বা হতাহতের আশঙ্কা নেই। ভবনের দ্বিতীয় থেকে ষষ্ঠ তলা পর্যন্ত খুঁজে দেখা হয়েছে। ভেতরে কেউ আটকা পড়া নেই। সবাইকে বের করে আনা হয়েছে।

আগুনের কারণ সম্পর্কে এখনও জানা যায়নি। এ বিষয়ে তদন্ত কমিটি করা হবে বলে জানিয়েছেন ফায়ার সার্ভিসের মহাপরিচালক।

রাজধানী ঢাকার বাবুবাজার ব্রিজের পাশে আরমানিটোলায় শুক্রবার রাত সোয়া তিনটার দিকে হাজী মূসা ম্যানশন নামের ছয়তলা আবাসিক ভবনের নিচতলার রাসায়নিক গুদামে আগুন লাগে।

ফায়ার সার্ভিসের পরিচালক (অপারেশন অ্যান্ড মেইনটেন্যান্স) লেফটেন্যান্ট কর্নেল জিল্লুর রহমান জানান, আগুনে মারা গেছেন এক জন নারী ও একজন পুরুষ। আহতদের মধ্যে ১৪ জন ভবনের বাসিন্দা ও তিনজন ফায়ার সার্ভিসের কর্মী।

ভবনের ভেতরে আটকে পড়া বাসিন্দাদের বিভিন্ন ফ্ল্যাটের গ্রিল কেটে মই দিয়ে নামিয়ে আনা হয়। নিচতলা থেকে ধোঁয়া অন্য তলাতেও ছড়িয়ে পড়ায় অনেকে অসুস্থ হয়ে পড়েন।

এই ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী ভবনের পাশের এটিএম বুথের নিরাপত্তারক্ষী বজলুর রহমান জানান, ভবনের নিচতলা ও দোতলার মাঝামাঝি জায়গায় সামনের দিকে বিকট শব্দ হয়। সামনে এসে দেখেন আগুন ধরে গেছে। তখন তিনি ও আরেকজন মিলে এই ভবনের কলাপ্সিবল গেটের তালা ভেঙে একজনকে বাইরে নিয়ে আসেন। এরপর ভেতরের দিকেও আগুন ধরে যাওয়ায় তারা সেখান থেকে সরে আসেন।