খালেদা জিয়ার সবশেষ শারীরিক অবস্থা নিয়ে যা জানালেন চিকিৎসক

শনিবার, এপ্রিল ১৭, ২০২১

ঢাকা : করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত বিএনপি চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল বলে জানিয়েছেন তার ব্যক্তিগত চিকিৎসক দলের একজন সদস্য।

তিনি জানান, খালেদা জিয়ার ব্লাড টেস্টসহ আরো বেশ কয়েকটি পরীক্ষা-নিরীক্ষা করতে দেওয়া হয়েছে তার। সেগুলোর পূর্ণাঙ্গ রিপোর্ট আসার পর পরবর্তী আপডেট বলা যাবে। পরশু রাতে তার শরীরে কিছুটা জ্বর থাকলেও গতকাল দুপুরের পর থেকে তাও কমে গেছে। ফলে বেগম খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা আপাতত স্থিতিশীল রয়েছে। শনিবার (১৭ এপ্রিল) গণমাধ্যমকে এসব তথ্য জানান তিনি।

তিনি আরও জানান, করোনায় আক্রান্ত হওয়ার আজ নয় দিন অতিবাহিত হয়েছে খালেদা জিয়ার । আর পাঁচ/ছয় দিন পরে তার কোভিড টেস্ট করা হবে। আশা করি তখন তার রিপোর্ট নেগেটিভ আসবে এবং তিনি পুরোপুরি সুস্থ হয়ে উঠবেন।

গত শনিবার খালেদা জিয়ার নমুনা পরীক্ষা শেষে রোববার তার করোনা পজেটিভ শনাক্ত হয়। চিকিৎসক এফএম সিদ্দিকীর নেতৃত্বে তার ব্যক্তিগত চিকিৎসক টিম বিএনপি চেয়ারপারসনের চিকিৎসা শুরু করে। লন্ডন থেকে চিকিৎসক পূত্রবধূ জোবাইদা রহমানও চিকিৎসার বিষয়ে পরামর্শ দিচ্ছেন।

লন্ডনে থেকেই পুত্রবধূ ডা. জোবায়দা রহমান দেশে-বিদেশে বিভিন্ন চিকিৎসকদের সঙ্গে আলাপ-আলোচনা করে বেগম জিয়ার সুচিকিৎসার তদারকি করছেন। এছাড়া তার চিকিৎসায় গঠিত মেডিকেল বোর্ডের সমন্বয়ও করছেন ডা. জোবায়দা রহমান।

৭৫ বছল বয়সী সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া দুর্নীতির দুই মামলায় দণ্ডিত। দণ্ড নিয়ে তিন বছর আগে তাকে কারাগারে যেতে হয়।
দেশে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শুরুর পর পরিবারের আবেদনে সরকার গত বছরের ২৫ মার্চ শর্তসাপেক্ষে তাকে সাময়িক মুক্তি দেয়। তখন থেকে তিনি গুলশানে নিজের ভাড়া বাসা ফিরোজায় থেকে ব্যক্তিগত চিকিৎসকদের তত্ত্বাবধায়নে চিকিৎসা নিচ্ছেন। তার সঙ্গে বাইরের কারও যোগাযোগ সীমিত।