নারায়ণগঞ্জে হকার-পুলিশ ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া, রাস্তায় আগুন

সোমবার, মার্চ ৮, ২০২১

নারায়ণগঞ্জ : নারায়ণগঞ্জ শহরের প্রধান বঙ্গবন্ধু সড়কের ফুটপাতে বসার দাবিতে নিয়মিত আন্দোলন করা হকারদের একটি অংশ শহরে সড়ক অবরোধ করেছে। ওই সময় পুলিশ এক হকার নেতাকে আটকের গুজবকে কেন্দ্র করে শহরের রাস্তায় আগুন ধরিয়ে দিয়ে বিক্ষোভ দেখিয়েছে হকাররা।

এতে পুলিশ কয়েক দফা বাধা দিলেও হকাররা খণ্ড খণ্ডভাবে কয়েকটি স্থানে গিয়ে আলাদাভাবে বিক্ষোভ দেখায়। এক পর্যায়ে শহরের প্রধানতম বঙ্গবন্ধু সড়কে প্রায় আধা ঘণ্টা যান চলাচল বন্ধ থাকায় তীব্র যানজট দেখা দেয়। গতকাল রবিবার সন্ধ্যায় শহরের বঙ্গবন্ধু সড়কের চাষাঢ়া বালুর মাঠ, প্রেসক্লাবের সামনে ও সুগন্ধা রেস্টুরেন্টের সামনে পৃথকভাবে এসব ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, হকারদের ফুটপাতে বসার দাবিতে গত কয়েকদিন ধরেই বিক্ষোভ করে আসছে হকারদের একটি অংশ। রবিবার বিকেলে তারা শহরে বিক্ষোভ মিছিল করে। পরে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় হকারদের একটি অংশ আবারো ফুটপাতে বসার চেষ্টা করে। ওই সময়ে পুলিশ তাদের বাধা দিয়ে সরিয়ে দেয়। মৃদু লাঠিচার্জও করে। তখন হকার নেতা আসাদুজ্জামান আসাদকে আটক করা হয়েছে খবর ছড়িয়ে পড়লে হকাররা ক্ষুব্ধ হয়ে উঠে।

এর জের ধরে হকাররা বঙ্গবন্ধু সড়কে মর্ডান ডায়াগনস্টিক সেন্টারের সামনে যান চলাচল বন্ধ করে দেয়। তারা সড়কের মধ্যে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ দেখাতে থাকে। পুলিশ খবর পেয়ে সেখান থেকে হকারদের সরিয়ে দিলে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া শুরু হয়।

তখন সদর মডেল থানার ওসি শাহ জামানের নেতৃত্বে পুলিশ অ্যাকশনে যাওয়ার চেষ্টা করলে হকারদের আরেকটি গ্রুপ সুগন্ধা রেস্টুরেন্টের সামনে গিয়ে সড়কে হকারদের ব্যবহৃত কাগজ সারিবদ্ধ রেখে আগুন ধরিয়ে দেয়। এতে করে বঙ্গবন্ধু সড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। পুলিশ সেখানে গেলে হকাররা সরে যায়।

হকাররা অভিযোগ করে জানায়, কোনো রকম পুনর্বাসন ছাড়াই তাদেরকে ফুটপাত থেকে উচ্ছেদ করা হচ্ছে। এতে করে সংসার নিয়ে অভাবে পড়েছে হকার সংশ্লিষ্ট প্রায় ৪ থেকে ৫ হাজার মানুষ। আমরা শন্তিপূর্ণভাবে এর সমাধান চাই।

নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানার ওসি শাহ জামান বলেন, এ ঘটনায় কাউকে আটক করা হয়নি। হকাররা নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে ফুটপাত দখল করার চেষ্টা করলে তাদের সরিয়ে দেওয়া হয়। পরে পুলিশ সেখানে গিয়ে আগুন নিভিয়ে ফেলে। কোনোভাবেই হকারদের ফুটপাত দখল করে মানুষের চলাচলকে ব্যাঘাত করতে দেওয়া হবে না।