জাবিতে আন্দোলন স্থগিত, হল না ছাড়ার ঘোষণা শিক্ষার্থীদের

মঙ্গলবার, ফেব্রুয়ারি ২৩, ২০২১

জাহিন সিংহ, সাভার থেকে : জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় (জাবি) আবাসিক হলে অবস্থান করার ঘোষণা দিয়ে গত কয়েকদিনের চলমান আন্দোলন আপাতত স্থগিত করেছেন শিক্ষার্থীরা। তবে হল ছাড়তে আবারও নির্দেশ দিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। অন্যদিকে পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত হলেই থাকবেন বলে জানান আন্দোলনকারীরা।

মঙ্গলবার দুপুরে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবহন চত্বরে সাংবাদ সম্মেলন করেন। এসময় নাটক ও নাট্যতত্ত্ব বিভাগের ৪৫ ব্যাচের শিক্ষার্থী নশিন আদিবা বলেন, ‘আমাদের কয়েক দফা দাবির মধ্যে অধিকাংশ মেনে নিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন মামলা করেছে, মামলার প্রক্রিয়ায় সময় লাগবে বলে প্রশাসন আমাদের কাছে সময় চেয়েছে, তাই আন্দোলন স্থগিত করা হলো।’

তবে নিরাপত্তার স্বার্থে এখনই হল না ছাড়ার ঘোষণা দেন তিনি। বিশ^বিদ্যালয় প্রশাসন তাদের প্রতিশ্রুতি ভঙ্গ করলে আবারও সাধারণ শিক্ষার্থীদের সঙ্গে নিয়ে আন্দোলনের হুশিয়ারী দেওয়া হয় সংবাদ সম্মেলন থেকে।

এদিকে মঙ্গলবার দুপুর ২টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রভোস্ট কমিটির মিটিং শেষে আবারও শিক্ষার্থীদের হল ছাড়ার নির্দেশ দেয় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। প্রভোস্ট কমিটির সভাপতি অধ্যাপক মোতাহার হোসেন বলেন, ‘শিক্ষার্থীদের বুঝিয়ে হল ছেড়ে যাওয়ার অনুরোধ জানানো হচ্ছে। শিক্ষার্থীরা রাষ্ট্রের আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হয়ে হল ত্যাগ করবে বলে আমরা আশাবাদী।’

প্রশাসন শিক্ষার্থীদের বুঝাবেন তবে এখনও কোনো কঠোর অবস্থানে যাবেন না বলেও তিনি জানান।

দেশে করোনার প্রাদুর্ভাব শুরু হলে গত বছরের ১৭ মার্চ থেকে সরকারী নির্দেশনায় সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মতো বন্ধ হয় জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়। এতে আবাসিক হলগুলো ছেড়ে যান শিক্ষার্থীরা। তবে ক্যাম্পাসের আশপাশের এলাকার ভাড়া বাসায় যেসব শিক্ষার্থী থাকতেন, তাদের অনেকেই সেখানের অবস্থান করে আসছিলেন।

গত শুক্রবার ক্রিকেট খেলাকে কেন্দ্র করে বিশ্ববিদ্যালয়ের পার্শ্ববর্তী আশুলিয়ার গেরুয়া গ্রামের বাসিন্দাদের সাথে সংঘর্ষ ও ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনায় আহত হন ৪০ শিক্ষার্থী ও ৪ জন স্থানীয় বাসিন্দা। তাদের মধ্যে গুরুতর অবস্থায় বর্তমানে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ১১ শিক্ষার্থী।

এঘটনায় পর শিক্ষার্থীরা ক্যাম্পাসে জড়ো হয়ে আবাসিক হলের তালা ভেঙে সেখানে অবস্থান নেন। হামলার ঘটনার বিচার, শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত ও আবাসিক হল খুলে দেওয়াসহ কয়েক দফা দাবিতে শনিবার থেকে আন্দোলন করে আসছিলেন শিক্ষার্থীরা।