‘ট্রাম্প তুমি সর্বকালের নিকৃষ্ট প্রেসিডেন্ট, তুমি পতিত নেতা, মস্কোতে ফিরে যাও’

সোমবার, জানুয়ারি ২৫, ২০২১

ঢাকা : ‘ট্রাম্প তুমি সর্বকালের নিকৃষ্ট প্রেসিডেন্ট’, ‘ট্রাম্প তুমি করুণভাবে পতিত নেতা, তুমি মস্কোতে ফিরে যাও’। এই কথাগুলো দুটি ব্যানারে লিখে গতকাল রোববার ফ্লোরিডার মার-এ-লাগোর আকাশে হঠাৎ করেই উদিত হয় দুটি বিমান। বিমানগুলো মার-এ-লাগোকে ঘিরে নিচ দিয়ে চক্কর কাটতে শুরু করে।

দুটি বিমানই বিশাল দুই ব্যানার টেনে নিয়ে যাচ্ছিল পেছনে। যার একটিতে লেখা ছিল ‘ট্রাম্প ওয়ার্স্ট প্রেসিডেন্ট এভার’। আরেকটি ব্যানারের স্লোগান ছিল- ‘ট্রাম্প ইউ প্যাথেটিক লুজার, গো ব্যাক টু মস্কো’। ক্ষমতা থেকে বিদায় নিয়ে ট্রাম্প নাতিশীতোষ্ণ আবহাওয়ায় সমুদ্র উপকূলীয় শহর পামবিচে গেলেও সেখানে তাকে উষ্ণ স্বাগতম বা প্রাণঢালা অভ্যর্থনা জানানো হয়নি। ফ্লোরিডার পামবিচ এলকা এখন ডেমোক্র্যাটদের শক্তিশালী ঘাঁটিতে পরিণত হয়েছে।

বিশেষ করে ক্যাপিটল হিলে হামলার পর এখন ট্রাম্পের জনপ্রিয়তায় ভাটা পড়েছে। ট্রাম্পের পায়ের নিচের মাটি হয়ে পড়েছে নড়বড়ে।

পামবিচ পোস্টের সিনিওর রাজনৈতিক প্রতিবেদক ক্রিস্টিন স্টেপলেটন সিবিএস নিউজকে বলেন, আমাদের এই ওয়েস্ট পামবিচ অত্যন্ত গণতান্ত্রিক মূল্যবোধ সম্পন্ন একটি জায়গা। যেখানে ট্রাম্পের মতো কাউকে স্বাগত জানানো যায় না।
গত ডিসেম্বর মাসে মার-এ-লাগোর বসিন্দারা ট্রাম্প যাতে সেখানে বসতি গাড়তে না পারেন সেই লক্ষ্যে একজন আইনজীবী নিয়োগ করে আইনী লড়ায়ে নামেন। মার-এ-লাগোর বাসিন্দারা দাবি করেন, ১৯৯০ সালের সম্পাদিত এক চুক্তির অধীনে ট্রাম্প এই ক্লাব হাউসে তার বসবাসের অধিকার হারিয়েছেন। ১৯৯৩ সালে এ নিয়ে ট্রাম্প ও মার-এ-লাগোর বাসিন্দাদের মধ্যে বিরোধ দেখা দিলে তা পামবিচ শহর কর্তৃপক্ষ পর্যন্ত গড়ায়। তখন ট্রাম্পের পক্ষে তার আইনজীবী শহর কর্তৃপক্ষ’র কাছে অঙ্গিকার করেন ট্রাম্প সেখানে বসবাস করবেন না।
মার-এ-লাগোর বাসিন্দাদের আইনজীবী ডিসেম্বরে ওয়াশিংটন পোস্টকে বলেছিলেন, তিনি একই সাথে আবাসিক ভবন ও ক্লাব হাউস দুটো হিসাবে মার-এ-লাগোকে আইনগত ব্যাবহার করতে পারেন না।