রাষ্ট্রযন্ত্র বলে কিছুই নেই, সমস্ত কিছুই দলীয় হয়ে গেছে: রুমিন ফারহানা

শুক্রবার, ডিসেম্বর ১৮, ২০২০

গত এক দশক ধরে বিরোধী দলগুলোকে নিশ্চিহ্ন করার যে পায়তারা সরকার করেছে, তার পরও লার্জেস্ট পলিটিকাল পার্টি হিসেবে বিএনপি এখনো শক্ত হিসেবে দাঁড়িয়ে আছে মন্তব্য করে বিএনপির সংসদ সদস্য ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা বলেছেন, এতেই প্রমাণ করে বিএনপি একটি শক্তিশালী দল।

তিনি বলেন, বিএনপিকে আমি লার্জেস্ট দাবি করতেই পারি, কিন্তু সেটা প্রমাণ করার একটাই বৈধ উপায় আছে তাহলো অবাধ সুষ্ঠু নিরপেক্ষ নির্বাচন। সেটা দেওয়ার হিম্মত সরকার দেখায় না কেন? কারণ সরকারও খুব ভালো মতো জানে লার্জেস্ট এবং মোস্ট পপুলার পলিটিক্যাল পার্টি যদি বাংলাদেশে থাকে তা হচ্ছে বিএনপি।

সম্প্রতি একটি বেসরকারি টেলিভিশনের টকশো অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

রুমিন ফারহানা বলেন, ২০১৪ সালের চিন্তা করেন ১৫৩টি আসন ভোটের আগেই ফায়সালা হয়ে গেছে। ১৫৩টি আসনে তারা নির্বাচনের আগের দিনই ফয়সালা করে সরকার গঠন করেছেন। অর্থাৎ সরকার গদিতে বসা অবস্থায় একটি নির্বাচন নির্বাচন খেলা করেছে। ২০১৮ সালের চিন্তা করেন আগের রাতেই ব্যালট বাক্স ভরা হয়ে গেছে। এরকম নির্বাচন একটি সরকারের তখনই করতে হয় যখন জানে যে তার প্রতিপক্ষ ভেরি স্ট্রং।

তিনি বলেন, এখন যদি গুন্ডাতন্ত্র বলেন, এখন যদি রাষ্ট্রতন্ত্রের বিরুদ্ধে দাঁড়ানোর কথা বলেন; কোন পলিটিক্যাল পার্টি রাষ্ট্রযন্ত্রের বিরুদ্ধে দাঁড়ানোর ক্ষমতা রাখে না। দেশ কোন অবস্থায় গেলে আজকে আমলা থেকে শুরু করে বিচারপতি পর্যন্ত গিয়ে রাস্তায় দাঁড়ায় সরকারের বিরুদ্ধে।

রুমিন ফারহানা বলেন, আওয়ামী লীগ জনগণের কাঁধে কখনো ভর দেয়নি। আওয়ামী লীগের ভরটাই হচ্ছে পুলিশ, প্রশাসন, আইনশৃংখলা রক্ষা বাহিনী এবং বিচার বিভাগের উপর। এখন আর রাষ্ট্রযন্ত্র বলে কিছুই নেই সমস্তকিছুই দলীয় হয়ে গেছে।

তিনি বলেন, টিকে থাকার স্বার্থে পরস্পরকে ব্যাকআপ দিতে হচ্ছে। আওয়ামী লীগকে যেমন তাদের সমস্ত কিছু মেনে নিতে হচ্ছে। দুদিন আগে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছে আমলাদের টাকা পাচারের পরিমান রাজনৈতিক ব্যক্তিদের চেয়ে বেশি। এটা নিয়ে তদন্ত কোথায়? কোন খবর নেই।

বিএনপির এই সাংসদ বলেন, রাষ্ট্রের সমস্ত অর্গানগুলো এখন সরকারকে বেকাপ দিচ্ছে কারণ তাদেরকে টিকে থাকার প্রশ্ন রয়েছে। সরকার যেহেতু জনগণের ম্যান্ডেট ছাড়া এবং জনগণের ওপর নির্ভরশীল নয়।