অনিন্দ্য সুন্দর মুহূর্তের শ্রেষ্ঠ দৃশ্য এটি

সোমবার, নভেম্বর ৩০, ২০২০

স্পোর্টস ডেস্ক : ফুটবল ঈশ্বর দিয়াগো ম্যারাডোনার সঙ্গে ফুটবল খেলেছেন আরেক সেরা ফুটবলার লিওনেল মেসি। বিষয়টা অবাক মনে হলেও এমনই ঘটেছে। যে বছর ফুটবলের হাতেখড়ি মেসির, সে বছরই আর্জেন্টিনার ক্লাব নিওয়েলস ওল্ড বয়েজে নাম লিখিয়েছিলেন দিয়াগো ম্যারাডোনা।

বেশিদিন এ দলে খেলেননি ফুটবল ঈশ্বর। তবে মেসি ও ম্যারাডোনার প্রথম ‘একই দলে খেলা’র ঘটনা বলতে গেলে আসবে নিওয়েলস ওল্ড বয়েজের নামই।

তাই ম্যারাডোনার প্রতি সম্মান জানাতে এই ক্লাবের জার্সিটিই বেছে নিলেন বার্সেলোনার আর্জেন্টাইন সুপারস্টার লিওনেল মেসি। ম্যারাডোনার মৃত্যুর পর করা নিজের প্রথম গোলটি অগ্রজ তারকাকেই উৎসর্গ করেছেন আর্জেন্টিনা ও বার্সেলোনার অধিনায়ক। বলা হয়ে থাকে অনিন্দ্য সুন্দর মুহূর্তের শ্রেষ্ঠ দৃশ্য এটি।

গত বুধবার (২৭ নভেম্বর) রাতে পুরো বিশ্বকে কাঁদিয়ে আর্জেন্টিনার রাজধানী বুয়েন্স আইরেসে নিজ বাসায় হার্ট অ্যাটাক করে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন ফুটবল ইতিহাসের মহানায়ক দিয়াগো ম্যারাডোনা। মাত্র কয়েকদিন আগেই রক্তক্ষরণজনিত কারণে মস্তিষ্কে অস্ত্রোপচার করা হয়েছিল।

কয়েকদিন হাসপাতালে থাকার পর ডাক্তাররা তাকে নিজ বাসায়ই পুনর্বাসনের ব্যবস্থা করেছিলেন। যেখানে উন্নতির দিকেই যাচ্ছিল ম্যারাডোনার স্বাস্থ্যের অবস্থা। কিন্তু বুধবার হার্ট অ্যাটাক করেন আর্জেন্টাইন এই কিংবদন্তি। যেখান থেকে আর ফেরা হয়নি। তাকে সম্মান জানানোর জন্য বিভিন্ন আয়োজনের দেখা মিলেছে এরই মধ্যে।

সে ধারাবাহিকতায় আর্জেন্টিনার বর্তমান বিশ্বতারকা লিওনেল মেসি বেছে নিলেন মাঠের খেলাকেই। ম্যারাডোনার মৃত্যুর পর গতকাল প্রথম মাঠে নেমেছেন মেসি ও ম্যারাডোনার সাবেক ক্লাব বার্সেলোনা। নিজেদের ঘরের মাঠে ওসাসুনার বিপক্ষে তারা জিতেছে ৪-০ গোলে। দলের জয়ে গোল চারটি করেছেন মার্টিন ব্রাথওয়েট, ফিলিপ কৌতিনহো, অ্যান্তনিও গ্রিজম্যান এবং লিওনেল মেসি।

ম্যাচের ৭৩ মিনিটের সময় ডি-বক্সের বাইরে থেকে বাম পায়ের জোরালো শটে দলের চতুর্থ ও ম্যাচে নিজের প্রথম গোলটি করেছেন মেসি। এরপর নিজের স্বভাবসুলভ স্বাভাবিক উদযাপনের পরই ম্যারাডোনাকে সম্মান জানানোর সুযোগ খুঁজে নেন তিনি।

মাঠে নামার আগেই বার্সেলোনার জার্সির পরে এসেছিলেন নিওয়েলস ওল্ড বয়েজের জার্সি, অপেক্ষা করছিলেন শুধু কাঙ্ক্ষিত গোলের। ম্যাচের ৭৩ মিনিটের সময় গোল করেই বার্সার জার্সি খুলে ফেলেন মেসি এবং নিওয়েলসের জার্সি পরে ঠিক ম্যারাডোনার মতোই গোল উদযাপন করেন।

জার্সি খোলার কারণে অবশ্য হলুদ কার্ড দেখতে হয়েছে বার্সেলোনা অধিনায়ককে। কিন্তু তাতে কী? ফুটবল ঈশ্বর দিয়েগো ম্যারাডোনাকে এমন সম্মান জানানোর সুযোগ তো আর প্রতিদিন পাবেন না লিওনেল মেসি!

এদিকে ম্যাচ শুরুর আগে ম্যারাডোনার প্রতি সম্মান জানানোর লক্ষ্যে বার্সেলোনা ও ওসাসুনার খেলোয়াড়ের সেন্টারের চারপাশে গোল হয়ে দাঁড়ান। কিক অফের বল রাখার স্থানে রাখা হয় ম্যারাডোনার বার্সেলোনার জার্সি। যে ক্লাবে দুই বছর খেলেছিলেন ফুটবলের এই মহানায়ক। এছাড়া ম্যারাডোনার বাঁধাইকৃত জার্সির প্রদর্শনীও করা হয় এ সময়।