করোনায় চরম দারিদ্রে বিশ্বের ৩৫ কোটি শিশু

বৃহস্পতিবার, অক্টোবর ২২, ২০২০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : বিশ্বের প্রতি ৬টি শিশুর মধ্যে একজন, কিংবা আরও স্পষ্ট করে বললে মোট জনসংখ্যার ৩৫ কোটি ৬০ লক্ষ শিশু চরম দারিদ্রের মধ্যে রয়েছে। গত জুলাই মাসে এক সমীক্ষা প্রতিবেদনে এমনটাই বলা হয়। সম্প্রতি ওয়ার্ল্ড ব্যাঙ্ক গ্রুপ এবং ইউনিসেফের নতুন একটি সমীক্ষায় ধরা পড়েছে, পরিস্থিতি আগের থেকে আরও করুণ হয়েছে। আরও চরমে পৌঁছেছে শিশুদের দারিদ্র।

‘গ্লোবাল এস্টিমেট অব চিলড্রেন ইন মানিটারি পভার্টি: অ্যান্ড আপডেট’ নামে যৌথ এই প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, সাব-সাহারান আফ্রিকায় দুই-তৃতীয়াংশ শিশুর পরিবারে মাথাপিছু আয় দিনে ১.৯০ ডলার বা তারও কম। যদিও দক্ষিণ এশিয়ার পরিস্থিতি এর থেকে কিছুটা ভাল। কিন্তু সেখানে পাঁচটি শিশুর মধ্যে এক জন এই দুর্দশার শিকার।

রিপোর্টে দাবি করা হয়েছে, ২০১৩ থেকে ২০১৭, এই চার বছরে অর্থাভাবে থাকা শিশুর সংখ্যা অনেকটাই কমেছিল। কমপক্ষে ২ কোটি ৯০ লক্ষ শিশুর আর্থিক পরিস্থিতির কিছুটা হলেও উন্নতি হয়েছিল। কিন্তু গত কয়েক মাসে টানা গৃহবন্দি দশায় গোটা বিশ্বের অর্থনীতি কার্যত ভেঙে পড়েছে। আর এর সঙ্গে ফিরে আসছে শিশু-দারিদ্রও। কোথাও কোথাও অবস্থা আগের থেকেও খারাপ। এই শিশুদের মধ্যে ২০ শতাংশ পাঁচেরও কম বয়সি। এবং বেশির ভাগই উন্নয়নশীল দেশগুলোর বাসিন্দা।

ইউনিসেফের এক কর্মকর্তা বলেন, “প্রতি ছয়জন শিশুর মধ্যে এক জন চরম দারিদ্রে আছে, অর্থাৎ সে কোনরকমে টিকে থাকার লড়াই করছে। সেখানে মোট সংখ্যা তো শিউরে ওঠার মতো। বিশ্বে একটা বড় সংখ্যক শিশুর আর্থিক অবস্থা এমনিতেই খারাপ ছিল। মহামারি এসে এই পরিস্থিতি আরও খারাপ হয়েছে।”