স্বাস্থ্যবিধি মানাতে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করবে প্রশাসন

শনিবার, মে ৩০, ২০২০

ঢাকা: করোনা মহামারির বিস্তার রোধে ১৭ মার্চ থেকে সব ধরনের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করে সরকার। ২৬ মার্চ থেকে সরকারি-বেসরকারি বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠান, যানবাহন বন্ধ ঘোষণা করে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হয়। পরবর্তী সময়ে তা কয়েক দফা বাড়ানো হয়। তবে সাধারণ ছুটি থাকছে না রবিবার (৩১ মে) থেকে। কেবলমাত্র শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ছাড়া সবকিছুই চলবে, চলবে গণপরিবহনও। সরকার স্বাস্থ্যবিধি মেনে এবং সীমিত পরিসরে শব্দ দুটি যোগ করলেও সেটা কতটা কার্যকর হবে, তা নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেছেন জনস্বাস্থ্যবিদরা।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে স্বাস্থ্যবিধি মানাতে রবিবার (৩১ মে) থেকে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করবে প্রশাসন। এজন্য স্থানীয় প্রশাসনকে মোবাইল কোর্ট পরিচালনায় সহায়তা দেওয়ার জন্য সব আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে নির্দেশনা দিয়েছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।
শনিবার (৩০ মে) স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের উপসচিব আব্দুল জলিল স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে এই নির্দেশনা দেওয়া হয়।

চিঠিতে বলা হয়, পুলিশ, বিজিবি, কোস্টগার্ডসহ জননিরাপত্তা বিভাগের আওতাধীন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর প্রত্যেক সদস্যকে স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের জারি করা করোনাভাইরাস প্রতিরোধে স্বাস্থ্য ও বিধিসমূহ কঠোরভাবে প্রতিপালন করা এবং মোবাইল কোর্ট আইন-২০০৯ অনুযায়ী সংক্রামক রোগ (প্রতিরোধ নিয়ন্ত্রণ ও নির্মূল) আইন-২০১৮ অনুযায়ী মোবাইল কোর্ট পরিচালনায় স্থানীয় প্রশাসনকে সহায়তা দেওয়ার লক্ষ্যে নির্দেশনা দিতে নির্দেশক্রমে অনুরোধ করা হলো।

চিঠিতে আরও বলা হয়, দেশব্যাপী করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব এবং ব্যাপক বিস্তার রোধে সব পর্যায়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিতে স্বাস্থ্য বিভাগের ১১ মে’র স্মারকে ১৩টি এবং ২৫ মে’র স্মারকে করোনাভাইরাস প্রতিরোধে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের আবাসিক স্থাপনায় সামাজিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি পালনের লক্ষ্যে দু’টি নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে। মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের ২৮ মে স্মারকে ৩১ মে থেকে ১৫ জুন পর্যন্ত সময়ের জন্য ১৫টি শর্তসাপেক্ষে সার্বিক কার্যাবলি চলাচলে নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ বাড়ানো হয়েছে। তাছাড়া জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের ২৮ মে’র প্রজ্ঞাপনে শর্তসাপেক্ষে দেশের সার্বিক কার্যাবলি এবং জনসাধারণের চলাচলে নিষেধাজ্ঞা আরোপ বা সীমিতকরণ করা হয়েছে।

স্বাস্থ্য সেবা বিভাগ ও মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের পত্রসমূহ এবং জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের প্রজ্ঞাপনে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিতকরণের জন্য সর্বাবস্থায় মাস্ক পরিধানসহ স্বাস্থ্য বিভাগের জারি করা ১৩ দফা নির্দেশনা কঠোরভাবে অনুসরণের নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে।