বাংলাদেশকে সাফল্য এনে দিলেন রাহি

শনিবার, ফেব্রুয়ারি ২২, ২০২০

নিউজ ডেস্ক: মিরপুর টেস্টে আগে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা সাবধানে করে জিম্বাবুয়ে। উইকেটে থিতু হতে চেয়েছেন দুই ওপেনার কেভিন কাসুজা ও প্রিন্স মাসভরে। প্রথম ছয় ওভারে এসেছে কেবল এক রান। সেই রানটিও এসেছে ওয়াইড থেকে। অবশেষে অষ্টম ওভারে এসে উইকেটের দেখা পেয়েছে বাংলাদেশ।
বাংলাদেশকে প্রথম সাফল্য এনে দিয়েছেন আবু জায়েদ রাহি। অষ্টম ওভারের শেষ বলে রাহির বলে নাঈম হাসানের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফিরে যান কেভিন কাসুজা। ফেরার আগে ২৪ বলে দুই রান করেন তিনি।
এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত জিম্বাবুয়ের সংগ্রহ এক উইকেটে ১৩ রান।
জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে একমাত্র টেস্ট দিয়ে সাদা পোশাকে ফিরেছেন মুশফিকুর রহিম। পারিবারিক কারণ দেখিয়ে পাকিস্তান সফরে যাননি তিনি। তবে এক টেস্ট বাদে ফের দলের হয়ে খেলছেন গুরুত্বপূর্ণ এই ব্যাটসম্যান।
মুশফিক ছাড়াও একাদশে ফিরেছেন নাঈম হাসান। বিসিএলে দারুণ বোলিং করা তরুণ এই অফ স্পিনারকে একাদশে সুযোগ দিতে ভুল করেনি টিম ম্যানেজম্যান্ট। আগের টেস্টে খেলা মাহমুদউল্লাহ ও রুবেল হোসেনের জায়গায় ফিরেছেন মুশফিক-নাঈম। অন্যদিকে অনেক দিন পর দলের ফিরলেও মূল একাদশে জায়গা হয়নি মেহেদী হাসান মিরাজের। পেস আক্রমণে সুযোগ মেলেনি তাসকিন আহমেদেরও।
টানা পরাজয়ের বৃত্ত থেকে বের হওয়ার লক্ষ্যে আজ শনিবার জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে একমাত্র টেস্টে মুখোমুখি হয়েছে বাংলাদেশ। মিরপুর শেরেবাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামে টস জিতে বাংলাদেশকে বোলিংয়ে পাঠিয়েছে জিম্বাবুয়ে।
ক্রিকেটে বাংলাদেশের সময়টা ভালো যাচ্ছে না। বিশেষ করে ক্রিকেটের দীর্ঘ সংস্করণে। গত এক বছরে টেস্টে জয়ের মুখ দেখেনি বাংলাদেশ। শেষ জয়টা এসেছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ২০১৮ সালে। তখন প্রধান কোচের দায়িত্বে ছিলেন চন্ডিকা হাথুরুসিংহে। ২০১৮ সালের ডিসেম্বরে মিরপুরে উইন্ডিজদের হোয়াইটওয়াশ করে বাংলাদেশে নিজের অধ্যায়ের ইতি টানেন লঙ্কান কোচ। সেই সঙ্গে বাংলাদেশও হারিয়েছে জয়ের ছন্দ।
হারের শুরুটা হয় গত বছর ফ্রেব্রুয়ারিতে। নিউজিল্যান্ড সফরে দুই ম্যাচে হেরে দেশে ফেরে বাংলাদেশ। এরপর ঘরের মাঠে হারে এই ফরম্যাটের নবীন দল আফগানদের কাছে। ডিসেম্বরে ভারত সফরে হোয়াইটওয়াশ। শেষ পাকিস্তানেও ইনিংস ব্যবধানে হার। সব মিলিয়ে হতাশার সাগরে ডুবে আছে বাংলাদেশ।
জয়ের ব্যাপারে আত্মবিশ্বাসী দুই দলই। তবে সাদা-পোশাকে কারা বাজিমাত করতে পারে সেটাই দেখার অপেক্ষা।
জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে একটি টেস্ট, তিনটি ওয়ানডে এবং দুই ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলবে বাংলাদেশ। ম্যাচগুলো অনুষ্ঠিত হবে মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়াম ও সিলেট আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে।
দুই দলের একাদশ
বাংলাদেশ: মুমিনুল হক (অধিনায়ক), তামিম ইকবাল, সাইফ হাসান, নাজমুল হোসেন শান্ত, মুশফিকুর রহিম, মোহাম্মদ মিঠুন, লিটন দাস, তাইজুল ইসলাম, নাঈম হাসান, এবাদত হোসেন, আবু জায়েদ রাহি ও মোহাম্মদ মিঠুন।
জিম্বাবুয়ে: সিকান্দার রাজা, রেগিস চাকাভা (উইকেটরক্ষক), ক্রেইক আরভিন (অধিনায়ক), কেভিন কাসুজা, টিমিসেন মারুমা, প্রিন্স মাসভরে, আনিসলে আনডলোভু, ভিক্টর নিয়াউচি, ব্রেন্ডর টেলর, ডোনাল্ট টিরিপানো ও চার্ল্টন টিশুমা।