দাদাসাহেব ফালকে পুরস্কারে সম্মানিত হৃত্বিক

শনিবার, ফেব্রুয়ারি ২২, ২০২০

বিনোদন ডেস্ক : পাটনার গণিতবিদ আনন্দ কুমারের জীবনকাহিনি সেলুলয়েডে তুলে এনেছিলেন পরিচালক বিশাল বহেল। ৩০ জন হতদরিদ্রছেলেমেয়েকে জীবনে প্রতিষ্ঠিত হতে সাহায্য করেছিলেন আনন্দ। লার্জার দ্যান লাইফ এই চরিত্রকে পর্দায় তুলে ধরতে কোনো সুযোগ ছাড়েননি পরিচালক।

সিনেমায় আনন্দের ভূমিকায় হৃত্বিক অসাধারণ অভিনয় করেছিলেন। সেই অভিনয়ের স্বীকৃতি মিলল। দাদাসাহেব ফালকে ফাউন্ডেশন পুরস্কারে সেরা অভিনেতা হিসেবে সম্মানিত হলেন হৃত্বিক রোশন। শুধু সেরা অভিনেতা হয়, সেরা ছবি হিসেবেও পুরস্কার জিতেছে ‘সুপার ৩০’।

পাটনার গণিতবিদ আনন্দ কুমারের জীবনকাহিনি সিনেমার চেয়ে কিছু কম নয়। অঙ্কের তুখড় ছাত্র আনন্দ অর্থাভাবে পড়াশোনা করতে পারেননি কেমব্রিজে। টাকার জন্য নিজের বাবাকেও বাঁচাতে পারেননি। প্রতিশ্রুতি দেয়া মন্ত্রী-আমলাও মুখ ফিরিয়েছিলেন আসল সময়ে। লক্ষ্যে পৌঁছনোর জন্য অপেক্ষারত প্রেমিকাকেও হারান।

তবে থেমে থাকেননি তিনি। হার মানেননি জীবনযুদ্ধের কাছে। নিজের অধরা স্বপ্ন দরিদ্র ছেলেমেয়েদের মধ্যে দিয়ে পূরণ করেন তিনি। শুধু তাদের পড়াশোনা নয়, দায়িত্ব নেন খাওয়াদাওয়ারও। তথাকথিত ‘এডুকেশন মাফিয়া’দের হাত থেকে বাঁচিয়ে আনন্দ নিজের ‘সুপার ৩০’ টিমকে পৌঁছে দিয়েছিলেন দেশের সর্বোচ্চ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে।

২০০২ সালে ‘সুপার ৩০’-র অভিযান শুরু করেছিলেন আনন্দ কুমার। প্রথম বছরেই ৩০ জনের মধ্যে ১৮ জন পড়ুয়া আইআইটি-র প্রবেশিকা পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছিলেন। তারপর আর থেমে থাকেনি ‘সুপার ৩০’-র যাত্রা।

২০১৭ সালে ৩০ জনের মধ্যে ৩০ জন্যই আইআইটি প্রবেশিকা পরীক্ষায় পাশ করেন। সাধারণ মানুষের এই অসাধারণ কাহিনিই পর্দায় তুলে ধরেন পরিচালক বিকাশ বহেল। ছবিতে অসাধারণ অভিনয় করেছিলেন হৃত্বিক রোশন। চলচ্চিত্র সমালোচকদের প্রশংসাও পেয়েছিলেন বিস্তর। এবার মিলল স্বীকৃতি। হৃত্বিকের এই স্বীকৃতির খবর শেয়ার করেছেন আনন্দ কুমারও। সূত্র: সংবাদ প্রতিদিন