দক্ষিণে ইশরাক, উত্তরে তাবিথ

মঙ্গলবার, ডিসেম্বর ২৪, ২০১৯

ঢাকা : ৩০ জানুয়ারি ঢাকার দুই সিটি নির্বাচন। রোববার তফসিল ঘোষণার পরই ঢাকার দুই সিটি নির্বাচনে বিএনপির মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থী চূড়ান্ত করতে কাজ শুরু করে দলের হাইকমান্ড। ধানের শীষের কাণ্ডারি ঠিক করতে শীর্ষনেতারা আলোচনা পর্যালোচনা করছেন। তবে, ডিএনসিসিতে তাবিথ আউয়াল ও ডিএসসিসিতে ইশরাক হোসেনকে মেয়র-প্রার্থী হিসেবে চূড়ান্ত করা হয়েছে বলে শীর্ষনেতাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে। তফসিল ঘোষণার পর এই দুই প্রার্থীকে নির্বাচনের মাঠে কাজ করার নির্দেশনা দিয়েছেন দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান।

গতকাল গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে স্থায়ী কমিটির বৈঠক শেষে মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, আগামী শনিবার দুই সিটি করপোরেশন নির্বাচনে দলের চূড়ান্ত প্রার্থী ঘোষণা করা হবে। প্রার্থীদের বৃহস্পতিবার দলের নয়াপল্টন কেন্দ্রীয় কার্যালয় থেকে মনোনয়ন ফরম নিতে হবে। আর ফরম জমা দিতে হবে শুক্রবার।

স্থায়ী কমিটির বৈঠকে সিটি নির্বাচন নিয়ে কয়েকটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। এরই মধ্যে সিটি নির্বাচনের ওয়ার্ড কাউন্সিলর প্রার্থী ঠিক করার জন্য একটি কমিটি গঠিত হবে। আর ঢাকা উত্তর, দক্ষিণ সিটি নির্বাচনে সমন্বয় করার জন্য আলাদা দুটি কমিটি গঠিত হবে। এসব কমিটির নেতৃত্বে থাকবেন দলের স্থায়ী কমিটির সদস্যরা।

দুই সিটি নির্বাচনে ধানের শীষের কাণ্ডারি কে হচ্ছেন এ বিষয়ে দলের স্থায়ী কমিটির একাধিক সদস্যের সঙ্গে কথা হয়। তারা গতকাল বলেন, দুই সিটির মেয়র প্রার্থীর বিষয়ে দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান কয়েক মাস আগে থেকে সম্ভাব্য প্রার্থীদের খোঁজ-খবর নিয়েছেন। তাদের মধ্যে দুজনকে নিজ নিজ এলাকায় কাজ করারও নির্দেশ দিয়েছেন। তারা তাদের মতো করে কাজও অব্যাহত রেখেছেন।

ঢাকা দক্ষিণ : ঢাকা দক্ষিণ সিটিতে বিএনপির প্রার্থী দুই প্রভাবশালী পরিবারের সদস্য। ওই দুই পরিবারই অবিভক্ত ঢাকার নগরপিতার আসনে প্রতিনিধিত্ব করার অভিজ্ঞতা রয়েছে। অবিভক্ত ঢাকা সিটি করপোরেশনে প্রায় এক যুগ মেয়র ছিলেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান সাদেক হোসেন খোকা। এখন ঢাকা সিটি করপোরেশন দুই ভাগে বিভক্ত।

সাদেক হোসেন খোকার ছেলে প্রকৌশলী ইশরাক হোসেন খোকা। এর আগে সর্বশেষ একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দলের প্রার্থী হয়েছিলেন। কিন্তু জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের স্বার্থে তিনি আর নির্বাচনে অংশ নেননি।

ইশরাক হোসেন খোকা বলেন, বাংলাদেশের গণতন্ত্র ও মানুষের অধিকার ফিরিয়ে আনা এবং খালেদা জিয়ার মুক্তির আন্দোলনের অংশ হিসেবে দলীয় সিদ্ধান্ত মেনে নেব। আমি নির্বাচনে লড়ব। আমার বাবা অবিভক্ত ঢাকা সিটি করপোরেশনের মেয়র ছিলেন। আমি প্রকৌশলী। ঢাকার যানজট নিয়েও পড়াশোনা করেছি। তাই বাবার পাশাপাশি আমার অভিজ্ঞতাকেও আমি কাজে লাগাতে পারব। ঢাকা আমাদের সবার প্রাণের শহর। এটিকে একটি সুস্থ, নিরাপদ, সবুজ ও উচ্চ মানসম্পন্ন জীবনযাত্রার শহর হিসেবে গড়ে তোলাই হবে আমার লক্ষ্য। এ জন্য নগরবাসীকে সঙ্গে নিয়ে আধুনিক প্রযুক্তি ও বিজ্ঞাননির্ভর দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা করব।

ঢাকা উত্তর : ২০১৫ সালের ২৮ এপ্রিল ঢাকা সিটি উত্তরের ভোটে অংশ নেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল আউয়াল মিন্টুর ছেলে দলের নির্বাহী কমিটির সদস্য তাবিথ আউয়াল। ওই নির্বাচনে নতুন মুখ হিসেবে উত্তরের ভোটারদের আকৃষ্ট করতে সক্ষম হন তিনি। নির্বাচনে বিএনপি বর্জন করার পরও তাবিথ আউয়াল ৩ লাখ ২৫ হাজার ৮০টি ভোট পেয়েছিলেন। আর ৪ লাখ ৬০ হাজার ১১৭ ভোট পেয়ে মেয়র নির্বাচিত হয়েছিলেন আনিসুল হক। ফলে, এই সিটিতে বিএনপির প্রার্থী মনোনয়নে কোনো পরিবর্তন হচ্ছে না বলেও দলের একাধিক সূত্র নিশ্চিত করেছে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, দক্ষিণ সিটিতে ইশরাকের পাশাপাশি সম্ভাব্য প্রার্থী হিসেবে রয়েছেন বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির সভাপতি হাবিব-উন-নবী খান সোহেল ও মির্জা আব্বাসের স্ত্রী আফরোজা আব্বাস। উত্তরে বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য তাবিথ আউয়ালের সঙ্গে আলোচনায় রয়েছেন যুবদল সভাপতি সাইফুল আলম নীরব ও বিএনপির শরিক এলডিপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব শাহাদাত হোসেন সেলিমের।

রোববার ঢাকার দুই সিটি নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কেএম নূরুল হুদা। ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী ৩০ জানুয়ারি দুই সিটির নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। উভয় সিটির নির্বাচনে মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষ সময় ৩১ ডিসেম্বর, বাছাই ২ জানুয়ারি ও প্রত্যাহারের শেষ তারিখ ৯ জানুয়ারি।

এ দিকে ঢাকা দুই সিটি নির্বাচনে ইভিএম নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করেছে বিএনপি। গতকাল গুলশান বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে স্থায়ী কমিটির বৈঠক শেষে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এ শঙ্কা প্রকাশ করেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, নির্বাচনে আমরা অংশ নেব এ সিদ্ধান্ত আমাদের আগেই হয়েছে। স্থানীয় সরকার নির্বাচনে অংশ নিচ্ছি, সে ধারাবাহিকতায় আমরা এ নির্বাচনেও অংশ নেব। সম্পূর্ণভাবে নির্বাচনের পরিবেশ পরিস্থিতির ওপর নির্ভর করবে নির্বাচনের পরিস্থিতি কী দাঁড়াচ্ছে।

তিনি বলেন, নির্বাচন কমিশন ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করেছে। আমরা মনে করি, হঠাৎ তড়িঘড়ি করে প্রকাশ করা হলো। যার পেছনে নির্বাচন কমিশনের মূল উদ্দেশ্য থাকে, সেটাই আছে বলে আমরা আশঙ্কা করি। তারা সরকারি দলকে জেতানোর জন্য তাড়াহুড়া করে সিডিউল ঘোষণা করেছে।

ইভিএম প্রসঙ্গে বিএনপির মহাসচিব বলেন, এটা অত্যন্ত আপত্তিজনক। আমরা এই সিদ্ধান্তের নিন্দা জানাচ্ছি। একই সঙ্গে আমরা বলতে চাই, ইভিএমে যথেষ্ট সুযোগ থাকবে ফলাফলকে নিয়ন্ত্রণ করার। এজন্যই আমরা এটার বিরোধিতা করেছি।

এর আগে বিকেল ৪টায় এ বৈঠক করেন দলের স্থায়ী কমিটি। লন্ডন থেকে স্কাইপি যুক্ত হয়ে বৈঠকের সভাপতিত্ব করেন দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান।

সংবাদ সম্মেলনে অ্যামনেস্টির দেওয়া বক্তব্য তুলে ধরে বিএনপি মহাসচিব বলেন, এ বিবৃতিতে দেওয়ার জন্য দলের স্থায়ী কমিটির পক্ষ থেকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি। শুধু দেশে নয়, আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলো খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য নিয়ে সরকার যে প্রকৃত চিকিৎসা দিচ্ছে না, তার যে প্রাপ্য জামিন এ বিষয়ে তারা তাদের বক্তব্য উপস্থাপন করেছে।

বৈঠকে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, জমিরউদ্দিন সরকার, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, নজরুল ইসলাম খান, ড. আব্দুল মঈন খান, মির্জা আব্বাস, সেলিমা রহমান, ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু উপস্থিত ছিলেন।