স্কুলছাত্রীকে কোমল পানীয় পান করিয়ে ‘ধর্ষণ’

সোমবার, ডিসেম্বর ২৩, ২০১৯

কলারোয়া (সাতক্ষীরা): কলারোয়ায় অষ্টম শ্রেণির এক ছাত্রীকে কোমল পানীয় পান করিয়ে ধর্ষণের অভিযোগে দুই যুবককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গতকাল রোববার রাতে কলারোয়া বাজার থেকে তাদেরকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন, পৌর সদরের যুগিবাড়ি গ্রামের ফারুক হোসেনের ছেলে মো. শুভ হোসেন (২২) ও উপজেলার ঝিকরা গ্রামের ডা. আমানুল্লাহ আমানের ছেলে ও প্রিমিয়ার ছাত্র সংঘের সভাপতি অভি (২৪)।

গতকাল রোববার সন্ধ্যায় ভুক্তভোগী স্কুলছাত্রীর বাবা কলারোয়া থানায় চারজনের নাম উল্লেখ করে মামলা দায়ের করেন।

মামলার অপর আসামিরা হলেন, কলারোয়া পৌরসদরের গদখালি গ্রামের মুনছুর আলীর ছেলে মো. গালিব (৩৫) ও পৌরসদরের আলতাফ হোসেনের ছেলে আল আমিন (১৯)।

মামলার বিবরণে জানা গেছে, গত শুক্রবার তার মেয়ে কেনাকাটার জন্য কলারোয়া বাজারে আসে। পথিমধ্যে কলারোয়া সরকারি কলেজের সামনে পৌঁছালে মো. গালিব ও আল আমিন তার মেয়েকে জোর করে এক ধরনের কোমল পানীয় পান করায়। এরপর থেকে তার শরীর ঝিমঝিম করতে থাকে। বাজার থেকে বাড়ি ফেরার পর বমি বমি ভাব হলে পান খাওয়ার জন্য স্থানীয় পানের দোকানে যায়। দোকান থেকে ফেরার পথে শুভ ও অভি তার মেয়েকে মোটরসাইকেলে তুলে নিয়ে লাঙ্গলঝাড়া ইউনিয়নের মাহমুদপুর এলাকায় একটি বিলের মধ্যে নিয়ে যায়। সেখানে শুভ তাকে ধর্ষণ করে। পরে মাহমুদপুর মান্দার তলা ব্রিজের সামনে একটি বাগানে ফেলে যায়।