সাধারণ যেসব লক্ষণে হতে পারে জটিল রোগ

বুধবার, ডিসেম্বর ১৮, ২০১৯

স্বাস্থ্য ডেস্ক : সব রোগেরই লক্ষণ থাকে। তবে অনেক ক্ষেত্রে কিছু লক্ষণ একাধিক রোগের প্রকাশ পেতে পারে। টেলিগ্রাফের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, এক তরুণকে মূত্রের এমন এক পরীক্ষা দেয়া হয় যা সাধারণ নারীদের গর্ভধারণ পরীক্ষায় দেয়া হয়। কিন্তু একই পরীক্ষা করা হয় অণ্ডকোষের ক্যান্সার শনাক্তকরণে। পরে ওই তরুণের ক্যান্সার ধরা পড়ে। এমন কিছু লক্ষণের কথা জেনে নিন যা সাধারণ মনে হলেও মারাত্মক কোনো রোগ নির্দেশ করে থাকে-

১. লক্ষণ : আইস ক্রেভিং।
রোগ : অ্যানেমিয়া।
হঠাৎ করেই খাবারের প্রতি প্রচণ্ড অরুচি চলে আসে। কিন্তু বরফ, বালু, চক বা পাথরের মতো বস্তু খেতে মন চাইলে তা হতে পারে অ্যানেমিয়ার লক্ষণ। ২০০৫ সালে আমেরিকান জার্নাল অব মেডিসিন-এ ফ্রান্সের গবেষকরা এ কথা জানান। এই ডিসঅর্ডারকে বলা হয় পিকা। দেহে আয়রনের ঘাটতি এবং বরফ, চক ইত্যাদি খাওয়ার প্রবণতার বিষয়টি বৈজ্ঞানীকভাবে প্রতিষ্ঠিত নয়। এক সময় পিকা অভ্যাসে পরিণত হয়।

২. লক্ষণ : ক্লেপ্টোমেনিয়া।
রোগ : ডেমেনশিয়া।
জেএএমএ নিউরোলজি-তে প্রকাশিত এক গবেষণাপত্রে বলা হয়, যেকোনো জিনিস চুরির প্রতি ব্যাপক আগ্রহের সৃষ্টি হয়। ক্যান্ডি থেকে শুরু করে যেকোনো কিছু। সামাজিক বিধি-নিষেধের কথা ভুলে যায় মন। এটা এক ধরনের ডেমেনশিয়া যা মস্তিষ্কের একটি অংশ এলোমেলো করে দেয়। গ্র্যান্ট গভর্মেন্ট মেডিক্যাল কলেজের মনোচিকিৎসক ড. ইউসুফ ম্যাচেসওয়ালা জানান, যখন কারো মাঝে ডেমেনশিয়া ভর করতে থাকে তখন মস্তিষ্কের ‘সামাজিক বিচার-বুদ্ধি’ নিয়ন্ত্রণের প্রিফ্রন্টাল কর্টেক্স অংশটি সুষ্ঠুভাবে কাজ করতে পারে না।

৩. লক্ষণ : নিঃশ্বাসে দুর্গন্ধ।
রোগ : পুরুষাঙ্গে সমস্যা।
মুখের বাজে গন্ধ হলে ওরাল হাইজিনের কথাই মাথায় আসে। এটা লিভারের সমস্যা বলেও চিহ্নিত হতে পারে। ডায়াবেটিক কিটোএসিডোসিস এমন এক অবস্থা যখন দেহ গ্লুকোজকে ভেঙে শক্তি উৎপাদন করতে পারে না। ফলে তা চর্বি ভেঙে এ কাজটি করে। ফলে দেহে কিটোন উৎপন্ন হয় যা মিষ্টি ও ফলের মতো গন্ধের শ্বাস-প্রশ্বাস উৎপন্ন করে। কিটোন এক সময় রক্ত ও মূত্রে উৎপন্ন হতে থাকে।

কেইএম হসপিটাল এবং জিএস মেডিক্যাল কলেজের সেক্সুয়াল মেডিসিন বিভাগের প্রধান ড. রাজন ভোঁসলে জানান, লিডার সঠিকভাবে কাজ কনা করলে রক্তের ফ্রি টেসটোস্টেরন হরমোনের মাত্রায় প্রভাব পড়ে। এতে যৌন আকাঙ্ক্ষা এবং পুরুষাঙ্গের উত্তেজনায় সমস্যা সৃষ্টি হতে পারে।

৪. লক্ষণ : হঠাৎ শীত লাগা।
রোগ : হাইপোথায়রোডিজম।
এমনকি রোদে গেলেও হঠাৎ করে শীত অনুভব করতে পারেন। এটা থায়রয়েড গ্রন্থির সমস্যার লক্ষণ প্রকাশ পেতে পারে। এ গ্রন্থির অস্বাভাবিক কার্যকলাপ তাপমাত্রা অনুভব সংশ্লিষ্ট মস্তিষ্কের অংশে গোলমাল শুরু হয়। এতে কেউ একজন হঠাৎ করে কারণ ছাড়াই শীত অনুভব করতে পারেন। বিষয়টি কেউ তেমন পাত্তা দেন না। অথচ তা হাইপোথায়রডিজমের লক্ষণ। সূত্র : টাইমস অব ইন্ডিয়া