বিএনপি আবারও রাজাকারের পক্ষ নিলো: হাছান মাহমুদ

মঙ্গলবার, ডিসেম্বর ১৭, ২০১৯

ঢাকা: তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক বলেছেন, ‘রাজাকারের তালিকা কেন? এমন প্রশ্ন করে বিএনপি আবারও রাজাকারের পক্ষ নিয়েছে এবং নিজেদের মুখোশই উন্মোচন করেছে।’

মঙ্গলবার (১৭ ডিসেম্বর) রাজধানীর ধানমন্ডিস্থ আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে দলের প্রচার উপ-কমিটির সভা শেষ তিনি এসব কথা বলেন।

‘দেশ স্বাধীনের ৪৮ বছর পর রাজাকারদের তালিকার প্রয়োজনটা কী? এটা সম্পূর্ণ রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত’- বিএনপি মহাসচিব মীর্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের এ মন্তব্যের সমালোচনা করে ড. হাছান বলেন, ‘মির্জা ফখরুল সাহেব তার এ বক্তব্যের মধ্যে দিয়ে রাজাকারদেরই পক্ষ নিয়েছেন। আমরা এতদিন ধরে বলে আসছি, বিএনপি স্বাধীনতাবিরোধী অপশক্তির প্রধান পৃষ্ঠপোষক এবং তাদের দলের চেয়ারপারসন পাকিস্তানিদের দোসর ছিলেন।’

তিনি বলেন, ‘বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানও মুক্তিযোদ্ধার ছদ্মাবরণে পাকিস্তানের গুপ্তচর হিসেবে কাজ করেছেন। আজ রাজাকারের তালিকা প্রকাশের পর মির্জা ফখরুল সাহেব কেন তালিকা প্রকাশ হলো- এ প্রশ্ন রেখে রাজাকারদের পক্ষ অবলম্বন করে নিজেদের মুখোশই উন্মোচন করেছেন।’

‘কারণ, রাজাকারের তালিকা প্রকাশের পর দেখা যাচ্ছে, রাজাকারদের যারা আশ্রয়-প্রশ্রয় দিয়েছে, তারা বিএনপি ও তাদের সহযোগী এবং সেজন্যই এ তালিকা প্রকাশে তাদের এত গাত্রদাহ’ বলেন আওয়ামী লীগ প্রচার সম্পাদক।

এসময় ‘তালিকায় কিছু ভুল রয়েছে’ বলে সাংবাদিকরা মন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করলে আওয়ামী লীগের এ মুখপাত্র বলেন, ‘কিছু ভুল রয়েছে, যা মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী নিজেও বলেছেন এবং ভুলগুলো অবশ্যই শুধরে নেবার সুযোগ আছে। তবে এ ভুলগুলো কেন হলো, কিভাবে হলো, প্রশাসনের ভেতরে ঘাপটি মেরে থাকা কেউ করেছে কি-না, তা অনুসন্ধান করে বের করা হবে।’

আওয়ামী লীগের ২১তম জাতীয় সম্মেলন উপলক্ষে এদিনের প্রচার উপ-কমিটির সভা সম্পর্কে দলের প্রচার সম্পাদক হাছান মাহমুদ বলেন, ‘জাতীয় সম্মেলনের তথ্যাদি council.albd.org ওয়েবসাইটে সন্নিবেশিত রয়েছে। এ সম্মেলন সামনে রেখে প্রচার উপকমিটির প্রত্যেক সদস্য আন্তরিক কাজের মাধ্যমে যে ব্যাপক প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে, তা সম্পন্ন হয়ে এসেছে। প্রত্যেক ডেলিগেটের জন্য যে পাটের ব্যাগ দেয়া হবে, সেখানে প্রয়োজনীয় তথ্যাদি-বক্তৃতার কপিসহ ফোল্ডার, লাল-সবুজ ক্যাপ, পানির বোতল এবং ডায়াবেটিকদের দিকে লক্ষ্য রেখে দু’টি লজেন্সও থাকবে।’

মন্ত্রী আরও বলেন, ‘এছাড়া, ২০১৩-১৪ ও ১৫ সালে বিএনপি জনগণের ওপর পেট্রোল বোমা নিক্ষেপ করে মানুষকে পুড়িয়ে হত্যাসহ যে নজীরবিহীন সন্ত্রাস পরিচালনা করেছে এবং নানা গুজব ছড়িয়ে মানুষের মাঝে ভীতিসঞ্চারের ষড়যন্ত্র করেছে, সেগুলোর ওপর একটি তথ্যচিত্র এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশের অভূতপূর্ব উন্নয়ন নিয়ে একটি প্রামাণ্যচিত্র নির্মাণ করছে আওয়ামী লীগ প্রচার উপকমিটি।’

‘আওয়ামী লীগকে মাতৃস্নেহ-মমতায় নেতৃত্ব দিয়ে চারবার দেশ পরিচালনায় নিয়ে যাওয়া প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জীবন ও কর্মের ওপর একটি অ্যালবাম, দলের সম্মেলন উপলক্ষে ২০ ডিসেম্বর জাতীয় দৈনিকগুলোতে ক্রোড়পত্র এবং গত সাড়ে দশ বছরে জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের দেশ গড়ার পথে অদম্য গতির উন্নয়নের একটি তুলনামূলক বিবরণী সম্বলিত পকেট-কার্ড প্রকাশ করা হবে।’

প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা এবং প্রচার ও প্রকাশনা উপ-কমিটির সভাপতি এইচ টি ইমাম বলেন, ‘অত্যন্ত কর্মতৎপর আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা উপকমিটি দলের জন্য অনন্য ভূমিকা রেখে চলেছে। সকল গণমাধ্যম আমাদের সাথে থাকবেন বলে আমরা আশা করি।’

প্রধানমন্ত্রীর সামরিক সচিবের মৃত্যুতে শোক

এইচ টি ইমাম ও ড. হাছান মাহমুদ উভয়েই তাদের বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রীর সামরিক সচিব মেজর জেনারেল মিয়া মোহাম্মদ জয়নুল আবেদীন, বীর বিক্রম এর মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেন ।

প্রচার উপ-কমিটির পক্ষ থেকে এদিন সন্ধ্যায় সিঙ্গাপুরের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় পরলোকগত জয়নুল আবেদীনের আত্মার শান্তি কামনা ও শোকাহত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানানো হয়।