মাদারীপুরের মামলায় স্থায়ী জামিন পেলেন দুদু

বুধবার, ডিসেম্বর ৪, ২০১৯

ঢাকা: বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেলে টক শো’তে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে প্রাণনাশের হুমকির অভিযোগে মাদারীপুরের আদালতে দায়ের হওয়া মামলায় স্থায়ী জামিন পেয়েছেন জাতীয়তাবাদী কৃষক দলের আহ্বায়ক ও বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু।

বুধবার (৪ ডিসেম্বর) মাদারীপুরের চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক মো. নাজির আহমেদ দুদুকে স্থায়ী জামিন দেন।

এদিন আদালতে দুদু’র পক্ষে জামিন শুনানি করেন অ্যাডভোকেট সাইফুল কবির। সঙ্গে ছিলেন অ্যাডভোকেট জাফর আলী মিয়া, অ্যাডভোকেট শরিফ সাইফুল কবির, অ্যাডভোকেট জামিনুর হোসেন মিঠুসহ জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের ৩০-৪০ জন আইনজীবী।

দুদুর জামিন শুনানিকে কেন্দ্র করে এদিন সকাল থেকেই আদালত প্রাঙ্গণে উপস্থিত ছিলেন- বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য কাজী হুমায়ুন কবির, মাদারীপুর জেলা বিএনপির সদস্য সচিব জাহান্দার আলী জাহান, জেলা বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক সোহরাব হোসেন হাওলাদার, বাবুল হাওলাদার, কেন্দ্রীয় কৃষক দলের সদস্য মাইনুল ইসলাম, শাহজাহান মিয়া সম্রাট, আলিম হোসেন, আলহাজ মোজাম্মেল হক মিন্টু সওদাগর, বিএনপি নেতা এনামুল হক লালচাঁন, জেলা কৃষক দল নেতা দাদন মোল্লা, রফিকুল ইসলাম টিপু, মাদারীপুর নাজিমউদ্দিন কলেজের সাবেক ভিপি কাইয়ুম মিয়া, সাবেক ভিপি সরোয়ার, সাবেক জিএস মিজানুর রহমান বাচ্চু এবং ছাত্রদল, যুবদল, কৃষকদল ও বিএনপিসহ দলটির অঙ্গসংগঠনের অসংখ্য নেতাকর্মী।

এর আগে গেল ২৯ সেপ্টেম্বর মাদারীপুর জেলা আওয়ামী লীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট বাবুল আক্তার বাদী হয়ে চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে দণ্ডবিধি ৫০৬(২) ধারায় এ মামলা দায়ের করেন।

ওইদিনই চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. নাজির হোসেন মামলার অভিযোগ গ্রহণ করে আদেশের জন্য অপেক্ষমান রাখেন।

এর আগে গত ১৬ সেপ্টেম্বর রাতে ডিবিসি নিউজ টেলিভিশন চ্যানেলে রাজকাহন শিরোনামের একটি টক শো অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে “যেভাবে শেখ মুজিব বিদায় হয়েছেন সেভাবেই শেখ হাসিনা বিদায় হবেন” বলে মন্তব্য করেন শামসুজ্জামান দুদু।

এ মন্তব্যের পর ঢাকা, কুমিল্লা, খুলনা, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, মাদারীপুর, ঠাকুরগাঁওসহ দেশের বিভিন্ন জায়গায় দুদুর বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রীকে প্রাণনাশের হুমকি ও রাষ্ট্রদ্রোহিতার অভিযোগ এনে মামলা দায়ের করা হয়।

এরই প্রতিবাদে ২২ সেপ্টেম্বর এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে দুদুর বিরুদ্ধে দায়ের হত্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানিয়ে সরকারের প্রতি হুঁশিয়ারি উচ্চরণ করেন সাবেক ছাত্রদলের ১৮ জন নেতা।