নিজের রেকর্ডের ম্যাচে বার্সাকে জয় উপহার দিলেন মেসি

বৃহস্পতিবার, নভেম্বর ২৮, ২০১৯

স্পোর্টস ডেস্ক : বার্সেলোনার হয়ে ৭০০তম ম্যাচের মাইলফলক স্পর্শ করলেন আর্জেন্টাইন সুপারস্টার লিওনেল মেসি। মেসিময় ম্যাচে বরুশিয়া ডর্টমুন্ডকে হারিয়ে উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগের দ্বিতীয় রাউন্ডে পৌঁছে গেল বার্সেলোনা। সাবেক কাতালান অধিনায়ক জাভি হার্নান্দেজের পর একমাত্র বার্সা খেলোয়াড় হিসেবে সবচেয়ে বেশি ম্যাচ খেলার রেকর্ড গড়লেন মেসি। বুধবার (২৭ নভেম্বর) ন্যু ক্যাম্পে জার্মান ক্লাব ডর্টমুন্ডকে ৩-১ গোলে হারিয়েছে বার্সা।

মেসির স্মরণীয় ম্যাচে আলোচিত ত্রয়ী মেসি-সুয়ারেজ ও গ্রিজম্যান গোল করেছেন। এই প্রথম ইউরোপ সেরার লড়াইয়ে একই ম্যাচে বার্সার হয়ে গোল পেয়েছেন বার্সার এমএসজি ত্রয়ী। গ্রিজম্যানের গোলটির অবদানও মেসির! এছাড়া সুয়ারেজকে দিয়েও গোল করিয়েছেন মেসি! পুরো ম্যাচে দুর্দান্ত খেলা মেসির রেটিং পয়েন্ট ৯.৬!

বরাবরের মতো এ ম্যাচের শুরু থেকেও অধিকাংশ সময় বল দখলে রেখে খেলতে থাকে স্বাগতিকরা। যদিও শুরুতে একটু নড়বড় অবস্থা ছিল- তবে তা সামাল দিয়ে ম্যাচের ২৯তম মিনিটে এগিয়ে যায় বার্সা। ডি-বক্সের মুখে বল পেয়ে নিজে শট না নিয়ে সুয়ারেজকে বাড়ান মেসি। ঠাণ্ডা মাথায় নিচু শটে গোলরক্ষকের দুই পায়ের ফাঁক দিয়ে ঠিকানা খুঁজে নেন উরুগুয়ের স্ট্রাইকার। এবারের চ্যাম্পিয়নস লিগে এটা তার তৃতীয় গোল। গোল পেয়ে আত্মবিশ্বাসী বার্সার জেঁকে বসেছিল ডর্টমুন্ডের ওপর। ৩৩তম মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন মেসি। সুয়ারেজকে বল বাড়িয়ে দ্রুত বাঁ দিক দিয়ে ডি-বক্সে ঢুকে পড়েন মেসি এবং সতীর্থের ফিরতি পাস পেয়ে কোনাকুনি শটে আসরে নিজের দ্বিতীয় গোলটি করেন বার্সা অধিনায়ক।

ক্লাবের হয়ে ৭০০তম ম্যাচ খেলতে নেমে একে অন্যকে ছাড়িয়ে যাওয়ার রেকর্ডে মেসি এর পর ছাড়িয়ে যান ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোকে। চ্যাম্পিয়নস লিগে ৩৪ নম্বর প্রতিপক্ষের বিপক্ষে গোল পেয়েছেন মেসি, আর রোনালদো গোল করেছেন ৩৩ প্রতিপক্ষের বিপক্ষে! ৬৭তম মিনিটে মেসির পাস বুকে শেলের মতো গিয়ে বেঁধেছে ডর্টমুন্ডের। গ্রিজম্যান সেই পাসের শেষ প্রান্তে গিয়ে বাম পায়ের কোণাকুণি ফিনিশে করে ফেলেন বার্সার হয়ে চ্যাম্পিয়নস লিগে নিজের প্রথম গোল। এরপর একরকম নিশ্চিত হয়ে যায় ম্যাচের ফল। দ্বিতীয়ার্ধের অধিকাংশ সময় বল দখলে রেখে আক্রমণে ওঠার চেষ্টায় ছিল জার্মানির ক্লাবটি। কিন্তু জয়ের জন্য তো করতে হবে চার গোল! যা বার্সার মাঠে অসম্ভব! যদিও ৭৭তম মিনিটে গোলের দেখা পায় সফরকারীরা। প্রায় ১৭ গজ দূর থেকে জোড়াল শটে কাছের পোস্ট দিয়ে বল লক্ষ্যে পাঠান ইংলিশ মিডফিল্ডার জেডন স্যানচো।