জাবিতে র‌্যাগের স্বীকার শিক্ষার্থীর পাল্টাপাল্টি অভিযোগ

শনিবার, মার্চ ২৩, ২০১৯

জাবি প্রতিনিধি : জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ৪৫তম আবর্তনের দুই শিক্ষার্থীর বিরুদ্ধে র‍্যাগের অভিযোগ তুলেছেন ৪৬ তম আবর্তনের এক শিক্ষার্থী। চড় মেরে তার কানের পর্দা ফাটিয়ে দেওয়া হয়েছে বলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট করেন তিনি। বিষয়টি নিয়ে তোলপাড় চলছে সাধারণ ছাত্রমহলে।

গত ২০ মার্চ ‘আমরাই জাহাঙ্গীরনগর’ নামে একটি গ্রুপে এ অভিযোগ করেন তিনি। বৃহস্পতিবারে অভিযুক্তদের নাম পরিচয়সহ আরেকটি পোস্ট করেন ভুক্তভোগী রাজন মিয়া। তিনি জানান, মীর মশাররফ হোসেন হলে এক রাতে র‍্যাগ দিচ্ছিলেন ৪৫তম আবর্তনের কয়েকজন শিক্ষার্থী।

এক পর্যায়ে তাদের কিছু কথা রাজন বুঝতে না পারলে তাকে কানের উপর এলোপাতাড়ি চড় থাপ্পর দিতে থাকেন ভুগোল ও পরিবেশ বিভাগের রাকিব হাসান সুমন ও একাউন্ট এন্ড ইনফরমেটিক্স বিভাগের সাকিব জামান অন্তু।

কানের পর্দা ফেটে যায় রাজনের। তাকে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিকেল সেন্টারে নিয়ে যাওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক সাভারের এনাম মেডিকেলে রেফার্ড করেন। ঘটনাটি কাওকে জানাতে নিষেধ করেন ৪৫ তম আবর্তনের সেই দুজন শিক্ষার্থী।

রাজনের বারবার চিকিৎসা করা হলেও কান ঠিক হয় নি এখনও। এভাবেই হতাশা ব্যক্ত করছিলেন রাজন।

রাজন মিয়া জানান, ‘ভর্তি হবার দেড় মাস পরেই ঘটনাটি ঘটে। তারা আমাকে ঘটনাটি বাইরে জানাতে নিষেধ করেন। কানের সমস্যার ফলে ক্লাস টিউটোরিয়াল ঠিকমত দিতে পারিনি। একারণে এটেনডেন্স, টিউটোরিয়ালেও নম্বর পাইনি।’

অভিযোগের বিষয়ে রাকিব হাসান সুমনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ‘এ ধরনের কোন ঘটনা ঘটে নি। যারা ছাত্রলীগ করে, তারাই গণরুমে গিয়েছে। সাধারণ শিক্ষার্থীদের র‍্যাগ দিয়েছে। আমার নাম কেন যুক্ত হলো তা মাথায় ঢুকছে না।’

এছাড়াও অপর অভিযুক্ত সাকিব জামান শুভকে কল দেওয়া হলে তার মোবাইল ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।

এদিকে র‍্যাগের অভিযোগ পাওয়া গেছে অভিযোগদাতার বিরুদ্ধেই। পরিবেশবিজ্ঞান বিভাগের মো. মাহবুবুর রহমান রিমন নামের ৪৭ তম আবর্তনের একই হলের ওই শিক্ষার্থী সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বলেন, তুচ্ছ কারণে তাকে মারধর করেছেন রাজন। তবে রাজন এ অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। প্রক্টর আ স ম ফিরোজ উল হাসান জানিয়েছেন, এ ব্যাপারে অভিযোগ পেলে আলোচনা সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে