যৌন হেনস্থা নিয়ে বিস্ফোরক মন্তব্য কারিশমার (ভিডিও)

সোমবার, নভেম্বর ৫, ২০১৮

বিনোদন ডেস্ক : ‘#মিটু’ ঝড়ে যখন বিধ্বস্ত বলিউড, সেই সময় মুখ খুললেন আরো এক সেলিব্রিটি। কঙ্গনা রানাউত, ঐশ্বরিয়া রাই বচ্চনদের পর এবার যৌন হেনস্থার প্রতিবাদে মুখ খুললেন কারিশমা কাপুর।

সম্প্রতি ডিএনএ-র এক সাক্ষাৎকারে হাজির হয়ে ৯-এর দশকের জনপ্রিয় অভিনেত্রী কারিশমা কাপুর বলেন, প্রতিদিন যেভাবে যৌন হেনস্থা নিয়ে একের পর এক অভিনেত্রী মুখ খুলছেন, তাতে অবাক হয়ে যাচ্ছেন তিনি। যৌন হেনস্থার অভিযোগ যারা করছেন, তাদের প্রতি পূর্ণ সমর্থন রয়েছে বলেও জানান কাপুর-কন্যা। পাশাপাশি তিনি আরো বলেন, যদি কারও বিরুদ্ধে যৌন হেনস্থার অভিযোগ প্রমাণিত হয়, তাহলে তারা যেন উপযুক্ত শাস্তি পান, সেদিকেও নজর রাখা উচিত।

কারিশমা কথায়, যাদের বিরুদ্ধে যৌন হেনস্থার অভিযোগ প্রমাণিত হবে, তারা শাস্তি পেলে, কাজের জায়গা অনেক বেশি নিরাপদ হবে। আর সেটাই সবচেয়ে বেশি প্রয়োজন। কর্মক্ষেত্রে মহিলারা যাতে নিরাপত্তা পান, সেই বিষয়ে প্রত্যেকের নজর দেওয়া উচিত বলেও মনে করেন কারিশমা কাপুর।

সম্প্রতি নানা পাটেকরের বিরুদ্ধে যৌন হেনস্থার অভিযোগ করে সরব হন বাঙালি অভিনেত্রী তনুশ্রী দত্ত। তিনি অভিযোগ করেন, ‘হর্ন ওকে প্লিস’-এর শুটিংয়ের সময় নানা পাটেকর নাকি তাকে যৌন হেনস্থা করেছেন। নানার কুকীর্তি দেখে ওই সময় সেটে হাজির কেউ মুখ খোলেননি। জনপ্রিয় করিওগ্রাফার গণেশ আচার্য এবং প্রযোজক সামি সিদ্দিকি গোটা বিষয়টি জানলেও, তারা এ বিষয়ে কোনো প্রতিবাদ করেননি বলে অভিযোগ করেন তনুশ্রী।

শুধু তাই নয়, নানা পাটেকরের কুকীর্তি যাতে প্রকাশ্যে না আসে, সেই কারণে মহারাষ্ট্র নবনির্মাণ সেনার কর্মীদের নিয়ে নাকি তনুশ্রীর বাড়িতে ভাংচুর চালানো হয়। ভাঙা হয় তনুশ্রীর গাড়িও। কিন্তু সবকিছু জেনে বুঝেও কেউ এ বিষয়ে টু শব্দ করেননি বলেও অভিযোগ করেন তনুশ্রী দত্ত।

‘হর্ন ওকে প্লিস’-এর সেটে যে ঘটনা ঘটে, তারপর প্রায় ১০ বছর পর বিষয়টি নিয়ে মুখ খোলেন তনুশ্রী দত্ত। আর এরপরই উঠতে শুরু করে একাধিক প্রশ্ন। ঘটনার পর ১০ বছর কেন চুপ করেছিলেন তনুশ্রী? এতদিন তিনি কেন মুখ খোলেননি বলেও প্রশ্ন তোলা হয় বলিউডের একাংশের পক্ষ থেকে। যার হালফিলের সংযোজন রাখি সাওয়ান্ত।

তনুশ্রীর বিরুদ্ধে পাল্টা সরব হয়ে মুখ খোলেন তিনি। রাখি বলেন, তনুশ্রী যা বলছেন তার কোনো ভিত্তি নেই। ২০০৮ সালে ‘হর্ন ওকে প্লিস’-এর সেটে নানা পাটেকর তনুশ্রীকে কোনোভাবে হেনস্থা করেননি বলেও দাবি করেন রাখি। প্রসঙ্গত, ‘হর্ন ওকে প্লিস’-এর যে গানে তনুশ্রীর ‘আইটেম নম্বর’ করার কথা ছিল, শোরগোল শুরু হওয়ার পর সেখানে তার জায়গায় নিয়ে আসা হয় রাখি সাওয়ান্তকে। সূত্র: জি-নিউজ