সপ্তাহখানেক পরেই টের পাবেন: দুদু

বুধবার, অক্টোবর ২৪, ২০১৮

সিলেট : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হুঁশিয়ারি দিয়ে বিএনপির ভাইস-চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু বলেছেন, ‘সিলেটে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের এই ঐতিহাসিক জনসভা থেকে হুঁশিয়ারি দিয়ে তোমাকে বলে যেতে চাই শেখ হাসিনা, বেগম জিয়া ঐ কারাগার থেকে বেরিয়ে আসার পর ওখানে কে যাবে তুমি কি জানো?’

তিনি বলেন, ‘শেখ হাসিনা সৌদি আরব সফর শেষে সংবাদ সম্মেলনে বলেছে আমরা নাকি ছাল-বাকলামীদের সঙ্গে নিয়ে জাতীয় ঐক্য করে ছাল-বাকলামী করছি। শেখ হাসিনা, আজকে এই জনসভায় বলে যাই তোমার বেশি সময় আর নাই, যদি হুসে থাকো নভেম্বরের আগে পদত্যাগ করো। আর সেটা না করলে কারা ছাল-বাকলামী করছে সপ্তাহখানেক পর টের পাবে।’

বুধবার (২৪ অক্টোবর) বিকেলে পূণ্যভূমি সিলেটের রেজিস্টি মাঠে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের জনসভায় তিনি এসব কথা বলেন।

শেখ হাসিনার উদ্দেশ্যে ছাত্রদলের সাবেক এই সভাপতি বলেন, ‘তারুণ্যের প্রতীক বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে তুমি হাসিনা যা খুশি তাই অপবাদ দিচ্ছো সাজা দিচ্ছো। তোমারও তো একটা ছেলে আছে, নাম বলবো না, বললে অনেক অসুবিধা। তারেক রহমানকে দেশে আসার সুযোগ দেন তাহলে বুঝতে পারবেন কত ধানে কত চাল।’

বিএনপি নির্বাচনে যাবে জানিয়ে দুদু আরও বলেন, ‘নির্বাচনে আমরা যাবো। তার আগে শেখ হাসিনা তোমাকে পদত্যাগ করতে হবে, পার্লামেন্ট ভাঙতে হবে, তোমাকে বাংলাদেশের কেউ চায় না। তুমি যদি যাবার রাস্তা না পাও এই জাতীয় ঐক্য তোমাকে যাবার রাস্তা দেখিয়ে দিবে।’

জনসভায় গণফোরামের সভাপতি ড. কামাল হোসেন, বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ড. আব্দুল মঈন খান, ভাইস-চেয়ারম্যান বরকতউল্লাহ বুলু, মোহাম্মদ শাহজাহান, প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানি, জয়নুল আবদীন ফারুক, আমানউল্লাহ আমান, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, গণফোরামের সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা মহসীন মন্টু, নির্বাহী সভাপতি অ্যাডভোকেট সুব্রত চৌধুরী, ঐক্যফ্রন্ট নেতা সুলতান মোহাম্মদ মনসুর ও জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ার সদস্য সচিব মোস্তফা আমিন প্রমুখ উপস্থিত আছেন।