বেনামে অভিযোগকারীর অস্তিত্ব আছে কি? প্রশ্ন কৃতীর

মঙ্গলবার, অক্টোবর ১৬, ২০১৮

বিনোদন ডেস্ক : বেনামে আসতে থাকা ‘#মিটু’ নিয়ে সরব হয়েছেন অভিনেত্রী কৃতী শ্যানন। তার সর্বশেষ ইন্সটগ্রাম পোস্টে এই বিষয়টি নিয়ে বেশ রেগেই নিজের প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন এই অভিনেত্রী। কৃতী লিখেছেন, “হেনস্থাকারীর বিরুদ্ধে কথা বলতে আক্রান্তের অনেক সাহস লাগে”। পাশাপাশি তিনি এও মনে করেন যে, ‘#মিটু’ আন্দোলন মানুষকে সেই সাহস জুগিয়েছে। কিন্তু যারা বেনামে অভিযোগ করে যাচ্ছেন তাদের অভিযোগ নিয়ে কতখানি এগোনো উচিৎ বা গুরুত্ব দেওয়া উচিৎ সেই নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন কৃতী।

কৃতী লিখেছেন, “এই আন্দোলন যাতে লঘু না হয়ে যায় তা নিশ্চিত করতে হবে।” তার পোস্টের প্রথম অংশেই তিনি লিখেছেন, “যদি কোনো বেনামী অভিযোগকারীর কাছ থেকে কারো বিরুদ্ধে যৌন হেনস্থার অভিযোগ উঠে আসে তাহলে কী করা উচিৎ? আমরা কি মেয়েটির বলা কথায় ঘটনা বিশ্বাস করে নেব? মেয়েটির কি আদৌ অস্তিত্ব আছে? স্রেফ বেনামী অভিযোগের ভিত্তিতে কীভাবে ঘটনার বিচার করা যায়? যখন আক্রান্তের নামই উঠে আসছে না সেক্ষেত্রে সেই ‘#মিটু’র গল্প বিশ্বাস করার কতখানি যৌক্তিকতা আছে? এমন ঘটনা কি মিডিয়ার সামনে আনা উচিৎ?”

‘#মিটু’ আন্দোলনের গুরুত্ব স্বীকার করে কৃতী জানান, ‘স্থায়ীভাবে কার্যকরী হওয়ার জন্য আইনি প্রতিক্রিয়ার প্রয়োজন’। তিনি জানিয়েছেন মহিলারা নিজেরা নিরাপদে থাকার জন্য প্রকাশ্যে আসছেন না। বেনামে অভিযোগ জমা পড়ছে। কয়েকজন মন্তব্য করে জানিয়েছেন, কয়েক দশক আগেই যৌন নির্যাতনের অভিযোগে ডোনাল্ড ট্রাম্পের সুপ্রিম কোর্টের মনোনীত ব্যক্তিকে দোষী সাব্যস্ত করার পর ক্রিস্টিন ব্ল্যাসি ফোর্ড খুনের হুমকি পেতে থাকেন। একজন লিখেছেন, “যারা সামনে এগিয়েই আসছেন না, তাদের কথায় বিশ্বাস করে আন্দোলন চলতে পারে না।” অনেকেই আবার কৃতীর পোস্টে তার জীবনের কোনো ‘#মিটু’ ঘটনা ঘটে থাকলে তা জানতে চেয়েছেন। কৃতীর পোস্টে মন্তব্য করে প্রচুর মানুষ সমর্থনও করেছেন। অনেকেই স্বীকার করেছেন যে নিজেকে গোপনে রেখে যৌন নির্যাতনের অভিযোগ তুলে যাচ্ছেন অনেকে।

অভিনেতা নানা পাটেকর ও পরিচালক সাজিদ খানের বিরুদ্ধে পৃথকভাবে দু’টি যৌন হেনস্থার ঘটনা সামনে আসায় হাউসফুল-৪ এর কাজ স্থগিত রাখা হয়েছে। এরা দু’জনেই এখন পদত্যাগ করেছেন এই সিনেমা থেকে। ১০ বছর আগে সিনেমার সেটেই নানা পাটেকর অভিনেত্রী তনুশ্রী দত্তকে যৌন হেনস্থা করেছিলেন বলে সম্প্রতি অভিযোগ করেছেন অভিনেত্রী। এর পরেই ভারতে ‘#মিটু’ আন্দোলন জোরদার হয়ে ওঠে। তনুশ্রী দত্তের এই অভিযোগের পরেই অভিনেত্রী কৃতী শ্যাননকে কোরিওগ্রাফার ও পরিচালক ফারহা খানের পোস্ট করা একটি ছবিতে দেখা যায় নানা পাটেকরের সাথে। সকলেই তারা বেশ হাসিখুশি ছিলেন, যেন তেমন কিছুই ঘটেনি।

নানা পাটেকার তনুশ্রী দত্তর সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করে জানিয়েছেন যে তনুশ্রীকে ক্ষমা চাইতে বলে আইনি নোটিশ পাঠিয়েছেন তিনি। সাজিদ খান টুইট করেছেন, তিনি যতক্ষণ না সত্যি প্রমাণ করতে পারছেন ততদিন হাউসফুলের নির্দেশনা থেকে ‘পদত্যাগ করা তার নৈতিক দায়িত্ব’।

হাউসফুল-৪ এর তারকা অক্ষয় কুমার শুক্রবার ঘোষণা করেছেন যে, তিনি প্রযোজকদের এই সিনেমার চিত্রগ্রহণ স্থগিত করতে বলেছিলেন এবং তিনি ‘প্রমাণিত অপরাধীদের’ সাথে কাজ করবেন না। নানা পাটেকার ও সাজিদ খানের পাশাপাশি আলোক নাথ, সুভাষ ঘাই, কৈলাশ খের এবং বিকাশ বেহলের মতো চলচ্চিত্র জগতের শিল্পীদের নাম উঠে এসেছে এই আন্দোলনের প্রেক্ষিতে। সূত্র: এনডিটিভি