‘যৌন হেনস্তা নিয়ে অনেক ভণ্ডামি ও মিথ্যা অভিযোগ আছে’

শনিবার, অক্টোবর ১৩, ২০১৮

বিনোদন ডেস্ক : অভিনেতা হৃতিক রোশনের সাবেক স্ত্রী এবং ইনটেরিয়র ডিজাইনার ও উদ্যোক্তা সুশান খান বলিউডে চলমান হ্যাশট্যাগ দিয়ে মি টু আন্দোলন নিয়ে মুখ খুলেছেন। তিনি বলেছেন, কোনো বৈধ প্রমাণ ছাড়া মিথ্যা অভিযোগ করা নারীদের উচিত হবে না।

গতকাল শুক্রবার বোন ফারাহ খানের নতুন একটি আউটলেটের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সুশান। এ সময় গণমাধ্যমকর্মীদের সঙ্গে কথা বলেন তিনি।

বর্ষীয়ান অভিনেতা নানা পাটেকারের বিরুদ্ধে যৌন হেনস্তার অভিযোগের পর নড়েচড়ে বসেছে বি-টাউন। তনুশ্রীর অভিযোগের পর যৌন হেনস্তার বিরুদ্ধে মুখ খুলেছেন অনেকেই। দুই বছর আগে হলিউডে যখন হ্যাশট্যাগ দিয়ে মি টু আন্দোলন চলছিল, তখন কার্যত নীরব ছিল বি-টাউন।

সুশান খানের সাবেক স্বামী, অভিনেতা হৃতিক রোশনও নিপীড়নবিরোধী আন্দোলনে যোগ দিয়েছেন। আসন্ন ছবি ‘সুপার থার্টি’ পরিচালক বিকাশ বেহলের বিরুদ্ধে যখন যৌন হেনস্তার অভিযোগ ওঠে, হৃতিক শক্ত অবস্থান নেন।

কিছুদিন আগে হৃতিকের সাবেক প্রেমিকা, অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাউত অভিযোগ করেন, পরিচালক-প্রযোজক বিকাশ বেহল তাঁকে যৌন হেনস্তা করেছিলেন।

কুইন অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাউত বলেন, “প্রতিবার কোনো সামাজিক অনুষ্ঠানে দেখা হলে আমরা পরস্পরকে জড়িয়ে ধরে অভ্যর্থনা জানাতাম। আর প্রতিবারই সে আমার ঘাড়ে মুখ গুঁজে দিত, আমাকে খুব জোরে চেপে ধরে আমার চুলের গন্ধ নিত। নিজেকে ওর কবল থেকে মুক্ত করতে বেশ বেগ পেতে হতো আমার। ও বলত, ‘তোমার গন্ধ খুব ভালো লাগে।’”

কঙ্গনা এ-ও বলেন, বিকাশ বেহলের সাবেক স্ত্রী তাঁর আচরণ সম্পর্কে জানতেন।

তবে বিকাশ বেহলের সাবেক স্ত্রী রিচা দুবে বলেছেন, মি টু আন্দোলনের অপব্যবহার করছেন কঙ্গনা। রিচা বলেন, ‘আমি সব মেয়ের উদ্দেশে বলতে চাই, যদি কোনো পুরুষ তোমাকে অস্বস্তিতে ফেলে এবং আপত্তিকরভাবে ছোঁয়, তবে কি তুমি ওই ভদ্রলোকের সঙ্গে বন্ধুত্ব রাখবে?’

রিচার প্রশ্ন, ‘আমি তোমার (কঙ্গনা) ও বিকাশের বেশ কয়েকটি ম্যাসেজ পড়েছি, এখনো তোমরা খুব ভালো বন্ধু। মিডিয়ায় সুযোগ পেয়েছ বলে সব বদলে গেল?’

যাহোক, সাবেক প্রেমিক হৃতিক রোশনের বিরুদ্ধেও মন্তব্য করেছেন কঙ্গনা রানাউত। বলেছেন, যেসব মানুষ তাদের বউকে ট্রফি বানিয়ে রাখে এবং তরুণী মেয়েদের রক্ষিতা হিসেবে রাখে, তাদেরও শাস্তি হওয়া উচিত। পরে সাংবাদিকরা জিজ্ঞেস করলে সরাসরি হৃতিকের নাম বলেন তিনি।

হৃতিকের সাবেক স্ত্রী সুশান খান। কাগজে-কলমে বিবাহবিচ্ছেদ হলেও এখনো তাঁদের সুসম্পর্ক আছে।

‘#মিটু আন্দোলনের’ প্রচারণা নিয়ে সুশান খান বলেন, মানুষের উচিত সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম প্ল্যাটফর্মকে সঠিকভাবে ব্যবহার করা। ‘সত্যি বলছি, আমি এই ইস্যু নিয়ে বেশিকিছু বলতে চাই না। কিন্তু আমি অবশ্যই মনে করি, এখানে অনেক ভণ্ডামি, মিথ্যা অভিযোগ ও পাগলামিপূর্ণ আচরণ হচ্ছে’, বলেন সুশান।

সুশান আরো বলেন, ‘তারা এই প্ল্যাটফর্মটাকে বাজেভাবে ব্যবহার করছে এবং এটা ভালো না। যদি তারা এ প্ল্যাটফর্মকে সঠিকভাবে ব্যবহার করে, তবে তা ভালো কিছু হবে। কোনো ধরনের বৈধ প্রমাণ ছাড়া কোনো ব্যক্তিকে অভিযুক্ত করা তাদের উচিত হবে না।’

এর আগে খবর বেরিয়েছিল, ২০১৪ সালে সুশান ও হৃতিক আলাদা হয়ে যান, কারণ হৃতিকের না কি বিবাহবহির্ভূত কয়েকটি সম্পর্ক ছিল। সূত্র : ইন্ডিয়া টিভি ও ইন্ডিয়া টুডে