গুজব ঠেকাবে ‘গুজব শনাক্তকরণ সেল’

মঙ্গলবার, অক্টোবর ৯, ২০১৮

ঢাকা: সরকারি চাকরিতে কোটা আন্দোলন ও নিরাপদ সড়কের দাবিতে সাধারণ শিক্ষার্থীদের আন্দোলনকে ঘিরে ‘গুজব’ শব্দটির সঙ্গে নতুন করে পরিচয় হয়েছে দেশবাসীর। সোস্যাল মিডিয়ায় এইসব ‘গুজবকাণ্ডে’ কড়া মূল্যও দিতে হয়েছে অনেককে। অনেকে হয়রানির শিকার হচ্ছেন এখনও। আবার প্রকৃত দোষীদেরও অনেকে আছেন ধরাছোঁয়ার বাইরে।

তবে গুজব ঠেকানো প্রসঙ্গে এবার তথ্য প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম জানিয়েছেন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে গুজব ঠেকাতে তথ্য অধিদফতরের উপ-প্রধান তথ্য অফিসার রিফাত জাফরীনকে প্রধান করে ৯ সদস্যের ‘গুজব শনাক্তকরণ সেল’ গঠন করেছে সরকার।

মঙ্গলবার (৯ অক্টোবর) সচিবালয়ে তথ্য মন্ত্রণালয়ের সভা কক্ষে নতুন এ সেলের কার্যক্রম নির্ধারণ ও সহযোগিতা কার্যকর বিষয়ক সভায় তিনি এ কথা জানান।

তারানা বলেন, ‘এই সেল সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমগুলো নিয়মিত পর্যবেক্ষণ করবে। চলতি মাসেই এ কার্যক্রম শুরু হবে। আমরা যদি মনে করি তথ্য অধিদফতরের এ সেলের কার্যক্রম পর্যবেক্ষণের জন্য আরও একটি কমিটি গঠন করা প্রয়োজন তাহলে আরও উচ্চ পর্যায়ের কমিটি গঠন করা হবে।’

কোনটি গুজব আর কোনটি গুজব নয় সেটি শনাক্ত করে মিডিয়াকে জানানোই হচ্ছে নতুন এই সেলের প্রধান কাজ।

এ বিষয়ে তারানা বলেন, ‘এক্ষেত্রে আমাদের মূল চ্যালেঞ্জ হচ্ছে গুজব কোনটাকে আমরা ধরছি। এমন মিথ্যা বা অসত্য বা বানোয়াট তথ্য বা অতিরঞ্জন যেটির কারণে সাম্প্রদায়িক সম্প্রতি ক্ষুণ্ন হয়, রাষ্ট্রের নিরাপত্তা বিঘ্নিত এবং রাষ্ট্র বিব্রতকর অবস্থায় পড়ে এবং যা কোনো একটি শান্তিপূর্ণ যৌক্তিক ইতিবাচক আন্দোলনকে ভিন্ন পথে নিয়ে যায়- সেগুলোকেই আমরা গুজব হিসেবে চিহ্নিত করবো।’

তথ্য মন্ত্রণালয়সহ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী, গোয়েন্দা সংস্থা, সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও সংস্থার প্রতিনিধিদের এ ব্যাপারে আন্তরিকভাবে কাজ করতে হবে বলেও মনে করেন তারানা হালিম।