শেখ হাসিনার কোনো বিকল্প বাংলাদেশে নেই: তথ্যমন্ত্রী

মঙ্গলবার, সেপ্টেম্বর ২৮, ২০২১

ঢাকা : অর্থনীতিতে এখন বাংলাদেশের থেকে ভারত-পাকিস্তান পিছিয়ে রয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। মঙ্গলবার (২৮ সেপ্টেম্বর) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৫তম জন্মদিন উপলক্ষে জাতীয় প্রেস ক্লাবে এক আলোচনা সভায় তিনি একথা বলেন। প্রগতিশীল সাংবাদিক মঞ্চ সভাটির আয়োজন করে।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে করোনার মধ্যে আমরা অর্থনৈতিক সূচক, সামাজিক সূচক, মানব উন্নয়ন সূচক, সব কিছুতেই পাকিস্তানকে অতিক্রম করেছি। ভারতকে অতিক্রম করেছি সামাজিক সূচক ও অর্থনৈতিক সূচকে।

প্রধানমন্ত্রী মানুষের পাশে ছিলেন বলেই এই করোনাকালে দেশে একজনও না খেয়ে মারা যায়নি বলে উল্লেখ করেন তথ্যমন্ত্রী।

তিনি বলেন, করোনা মোকাবিলা করার ক্ষেত্রে, অনেক প্রতিকূলতা থাকা সত্ত্বেও, ভারত থেকে টিকা না আসা সত্ত্বেও যেভাবে মানুষকে গণটিকা দিয়ে করোনাকে অনেকটা নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়েছেন, তা সমগ্র পৃথিবীতে প্রশংসিত।

হাছান মাহমুদ বলেন, এ করোনার মধ্যে প্রধানমন্ত্রী বলেছিলেন, গৃহহীনদের ঘর করে দেবেন। এ বছরের ডিসেম্বরের মধ্যে তিন লাখ পরিবারকে সরকার ঘর করে দেওয়ার পরিকল্পনা করেছে। ইতোমধ্যে প্রায় দেড় লাখ মানুষকে ঘর দেওয়া হয়েছে। এই করোনার মধ্যেও আজ এগিয়ে যাচ্ছে দেশ।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ আজকে মর্যাদার আসনে অধিষ্ঠিত। করোনার মধ্যে আমাদের মাথাপিছু আয় ভারতকেও ছাড়িয়ে গেছে। এগুলো কোনো গল্প নয়, এগুলো বাস্তবতা।

বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশকে একটি উন্নত সমৃদ্ধশীল দেশে রূপান্তরিত করতে চেয়েছিলেন বলে জানান তথ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু সময় পাননি বিধায় তা বাস্তবায়ন করতে পারেননি। তিনি বেঁচে থাকলে ১০ বছরের মধ্যেই বাংলাদেশ একটি উন্নত দেশে রূপান্তরিত হতো।

বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ এখন এগিয়ে চলছে উল্লেখ করে ড. হাছান মাহমুদ বলেন, বাংলাদেশকে যদি স্বপ্নের ঠিকানায় পৌঁছে দিতে হয়, যে স্বপ্ন বাস্তবায়নে আমাদের পূর্বসূরিরা বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে বুকের তাজা রক্ত ঢেলে বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠা করে গেছেন, সে স্বপ্ন বাস্তবায়ন করতে হলে শেখ হাসিনাকে দরকার।

শেখ হাসিনার নেতৃত্বেই আমরা সে স্বপ্ন বাস্তবায়নে এগিয়ে চলছি। তাই শেখ হাসিনার কোনো বিকল্প বাংলাদেশে নেই। আজকের দিনে মহান আল্লাহর কাছে প্রার্থনা করি, তিনি যেন অব্যাহতভাবে সে পথে নেতৃত্ব দিতে পারেন।

অনুষ্ঠানে প্রেস ক্লাবের সভাপতি ফরিদা ইয়াসমিন, সাংবাদিক ইকবাল সোবহান চৌধুরী, মনজুরুল আহসান বুলবুল, মুন্নি সাহাসহ সিনিয়র সাংবাদিকরা বক্তব্য দেন।