ছাত্রীকে ধর্ষণ-ভিডিও ধারণে প্রধান শিক্ষক গ্রেফতার

রবিবার, সেপ্টেম্বর ২৬, ২০২১

বান্দরবানে শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের পর ভিডিও ধারণ করে তা ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকির অভিযোগে করা মামলায় রুমা জুনিয়র উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সমর কান্তি দত্তকে (৫৫) গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

শুক্রবার (২৪ সেপ্টেম্বর) রুমা বাজার এলাকা থেকে অভিযুক্ত শিক্ষককে গ্রেফতার করা হয়। সমর কান্তি দত্তকে শনিবার (২৫ সেপ্টেম্বর) আদালতে সোপর্দ করা হয়।

গ্রেফতারকৃত সমর কান্তি চট্টগ্রাম জেলার সাতকানিয়া উপজেলার চরম্বা ইউনিয়নের বাসিন্দা। তিনি ১২ বছর ধরে রুমা জুনিয়র উচ্চ বিদ্যালয়ে শিক্ষকতা করছেন।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, ধর্ষণের শিকার ছাত্রী ২০১৯ সালে এসএসসি পরীক্ষায় অকৃতকার্য হয়। এরপর সে সমর কান্তি দত্তের বাড়িতে প্রাইভেট পড়া শুরু করে। প্রাইভেট পড়ানোর সময় সমর কান্তি ওই শিক্ষার্থীসহ সেখানে পড়তে আসা অন্য ছাত্রীদের বিভিন্নভাবে উত্যক্ত ও যৌন হয়রানি করত।

২৩ আগস্ট প্রাইভেট পড়ানো শেষে অন্য ছাত্রীদের চলে যেতে দিলেও ভুক্তভোগী ছাত্রীকে কাজ আছে বলে অপেক্ষা করতে বলেন সমর কান্তি দত্ত। পরে শিক্ষক ওই ছাত্রীকে ধর্ষণ করে এবং ভিডিও ধারণ করেন।

একই সঙ্গে অভিযুক্ত শিক্ষক ধর্ষিতার মোবাইলে ধারণকৃত ভিডিও পাঠিয়ে ব্ল্যাকমেইল করার চেষ্টা করেন। ওই ছাত্রী বিষয়টি তার অভিভাবকদের জানায়। পরে পরিবারের সদস্যরা সমর কান্তি দত্তের বিরুদ্ধে রুমা থানায় মামলা করেন।

পুলিশ জানায়, গত ২২ সেপ্টেম্বর প্রধান শিক্ষক সমর কান্তি দত্ত নগ্ন ছবি ও ধর্ষণের ভিডিও শিক্ষার্থীর মোবাইলে পাঠিয়ে দেখা করতে বলেন। দেখা না করলে নগ্ন ছবি ও ভিডিও অনলাইনে ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দেয়।

ওই শিক্ষার্থী বিষয়টি তার পরিবারকে জানালে শিক্ষার্থীর বড় বোন বাদী হয়ে প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে রুমা থানায় মামলা দায়ের করেন। পরে পুলিশ সমর কান্তি দত্তকে গ্রেফতার করে।

বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটি ভারপ্রাপ্ত সভাপতি জিংএংময় বম বলেন, প্রধান শিক্ষকের অনৈতিক আচরণের অভিযোগের বিষয়টি দীর্ঘদিন ধরে শুনে আসছি। তবে এতদিন কোনো শিক্ষার্থী সাহস করে কথা বলেনি।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে রুমা থানার (ওসি) আবুল কাশেম বলেন, নারী ও শিশু নির্যাতন দমন এবং পর্নোগ্রাফি নিয়ন্ত্রণ আইনের একটি মামলায় শিক্ষক সমর কান্তি দত্তকে গ্রেফতার করা হয়েছে। শনিবার তাকে আদালত তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।