মোবাইলে বিয়ে, টাকা-স্বর্ণালংকার নিয়ে অন্যের ঘরে স্ত্রী!

শুক্রবার, আগস্ট ১৩, ২০২১

নাটোর : দুই বছর আগে প্রবাসীর সঙ্গে মোবাইলে বিয়ের পর স্বামীর টাকা ও স্বর্ণালংকার নিয়ে অন্যের সঙ্গে ঘর বাঁধার অভিযোগ উঠেছে রুমি বেগম (২৭) নামে এক নারীর বিরুদ্ধে। নাটোরের গুরুদাসপুর উপজেলার নাজিরপুর ইউনিয়নের বেড়গঙ্গারামপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

ভুক্তভোগী মালয়েশিয়া প্রবাসী ওই এলাকার মৃত আক্কাছ আলী প্রামাণিকের ছেলে মো. শরিফুল ইসলাম। অভিযুক্ত নারী একই এলাকার আফজাল হোসেনের মেয়ে রুমি বেগম (২৭)। এ ঘটনায় প্রবাসী শরিফুলের বড়ভাই এন্তাজ আলী প্রামাণিক, স্ত্রী রুমি বেগম ও তার শ্বশুর আফজাল হোসেনের নামে গুরুদাসপুর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন ওই প্রবাসী।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, ২ বছর আগে মালয়েশিয়া থাকাকালীন প্রবাসী শরিফুল ইসলাম শরীয়ত মোতাবেক মোবাইল ফোনে রুমি বেগমকে বিয়ে করেন। বিয়ের পর থেকে রুমি বেগম তার কাছ থেকে বিভিন্ন সময় নগদ ২ লাখ টাকা ও লক্ষাধিক টাকার স্বর্ণালংকার নিয়েছেন। রুমিকে স্বামীর বাড়িতে অবস্থান করতে বললে রুমি ও তার পরিবারের লোকজন বিভিন্নভাবে টালবাহানা করতে থাকেন।

একপর্যায়ে প্রবাসী শরিফুল ইসলামকে তালাক দেন রুমি বেগম। তার বাবার সহযোগিতায় অন্য একটি ছেলেকে বিয়ে করেন। প্রবাসী শরিফুল ইসলামের কাছ থেকে প্রতারণা করে টাকা ও স্বর্ণালংকার হাতিয়ে নিয়ে অন্যের ঘরে চলে গেছেন রুমি বেগম।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে রুমি বেগম এবং তার পরিবার কোনো কথা বলতে অস্বীকৃতি জানান। তবে স্থানীয়রা জানান, বিয়ের পর থেকেই তাদের স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ভালো সম্পর্ক ছিল। কিন্তু প্রবাসীর বড়ভাই এবং শ্বশুর দুজনের যোগসাজশে রুমি শরিফুলকে তালাক দিয়ে অন্যত্র বিয়ে করেন।

গুরুদাসপুর থানার ওসি আব্দুর রাজ্জাক জানান, এ ঘটনায় একটি অভিযোগ পাওয়া গেছে। তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।