স্কুলছাত্রীকে তুলে নিয়ে দল বেঁধে ধর্ষণ

বৃহস্পতিবার, এপ্রিল ৮, ২০২১

সিলেটের বিয়ানীবাজারে এক স্কুলছাত্রী (১২) গণধর্ষনের শিকার হয়েছে। ঘটনার পরপরই দুই বখাটে যুবককে আটক করে পুলিশে দিয়েছে জনতা।

মঙ্গলবার (৬ এপ্রিল) দিনগত রাতে উপজেলার লাউতা ইউনিয়নের বাহাদুরপুর ঠিকরপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। ধর্ষণে শিকার ওই কিশোরীকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল হাসপাতালের ওসিসিতে ভর্তি করা হয়েছে।

আটকরা হলো, উপজেলার বাহাদুরপুর দক্ষিণ ঠিকরপাড়া গ্রামের মৃত ছাইদ আলীর পুত্র ফয়ছল আহমদ ও উত্তর গাংপার এলাকার মৃত আব্দুল খালিকের পুত্র মিশুক আহমদ।

পুলিশ জানায়, মঙ্গলবার রাত ৯টার দিকে ঘরের বাহিরে টিউবওয়েল থেকে পানি আনতে বের হয় ১২ বছর বয়সী ওই কিশোরী। এসময় ওৎপেতে থাকা দুই বখাটে যুবক ফয়ছল আহমদ ও মিশুক তার মুখ চেপে ধরে জনৈক ইউসুফ আলীর বাড়ির পাশের একটি নির্জন জায়গায় নিয়ে পালাক্রমে ধর্ষণ করে। পরে তাকে অজ্ঞান অবস্থায় রেখে পালিয়ে যায়। পরে কিশোরীর স্বজনরা অজ্ঞান অবস্থায় তাকে ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করেন। জ্ঞান ফেরার পর সে আসামীদের নাম ঠিকানা বলে। পরে স্থানীয় জনতা ধর্ষকদের আটক করে গণধোলাই দিয়ে থানা পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ দুই বখাটে যুবককে আটক করে থানা নিয়ে আসে।

বিয়ানীবাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হিল্লোল রায় ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, অভিযুক্ত দুই ধর্ষককে আটক করা হয়েছে। এ ঘটনায় কিশোরীর বাবা থানায় মামলা করেছেন।

বুধবার (৭ এপ্রিল) ওই মামলায় অভিযুক্ত দুই যুবককে গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতে পাঠানো হলে বিচারক তাদেরকে জেল-হাজতে প্রেরণের জন্য পুলিশকে নির্দেশ দেন।