নিজেরই পুরনো ছবি না চিনে স্বামী পরকীয়ায় লিপ্ত সন্দেহে কোপালেন স্ত্রী

বৃহস্পতিবার, জানুয়ারি ২৮, ২০২১

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : সন্দেহ রোগ নাকি সব চেয়ে বড় রোগ। সেটি আবারও প্রমাণিত হল। কিন্তু সন্দেহের বশে এবার মারাত্মক এক কাজ করে বসলেন এক মেক্সিকান নারী। নিজের যৌবন বয়সের ছবি নিজেই না চিনে স্বামী পরকীয়ায় লিপ্ত সন্দেহে এলোপাতাড়ি কোপালেন লিওনোরা নামের ওই মেক্সিকান নারী।

ঘটনার তদন্ত করতে গিয়ে হতবাক পুলিশও। সূত্র জানায়, সন্দেহের জায়গা থেকেই স্বামীর মোবাইল ফোন নিয়মিত চেক করতেন লিওনোরা। হঠাৎ ফোনে অল্প বয়সী এক নারীর সঙ্গে স্বামীর ছবি দেখতে পান। এতেই মেজাজ হারিয়ে ফেলেন তিনি।

রান্নাঘরের ছুরি নিয়েই স্বামী জুয়ানকে এলোপাতাড়িভাবে কোপাতে থাকেন। রক্তাক্ত অবস্থায় কোনোমতে স্ত্রীর হাত থেকে ছুরি ছিনিয়ে নিতে সক্ষম হন জুয়ান। তারপরই প্রকাশ্যে আসে আসল সত্য। জুয়ানই লিওনোরাকে জানান, ছবিটি তোমার যৌবন বয়সের। তারা প্রথম প্রথম যখন প্রেম করতো সে সময়ের।

জুয়ানের কথা প্রথমে কিছুতেই বিশ্বাস করতে চাননি লিওনোরা। কিন্তু ঠান্ডা মাথায় কথা বলে তাকে বোঝান জুয়ান। ইতোমধ্যেই, তাদের চিৎকার শুনে পুলিশে খবর দিয়েছিলেন এক প্রতিবেশী। সেই খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে এসে পৌঁছায় মেক্সিকান পুলিশ। জুয়ানকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠানো হয়। আর লিওনোরাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

নিজের ছবি নিজেই চিনতে পারলেন না লিওনোরা? এও কি সম্ভব? পুলিশের এই প্রশ্নের উত্তর দিতে গিয়ে জুয়ান জানান, পুরনো ছবিটি একটু এডিট করে ফোনে স্টোর করেছিলেন তিনি। সেই সময় এমনিতেই লিওনোরা অনেকটা রোগা ছিলেন। তাই নিজের ছবি নিজেই চিনতে পারেননি। স্ত্রীর বিরুদ্ধে জুয়ান এখনও পর্যন্ত কোনো অভিযোগ করেননি। তবে লিওনোরা মানসিক রোগে আক্রান্ত কি না, তা জানতে মনোবিদের সাহায্য নিচ্ছে পুলিশ।