সাভারে পৃথক ঘটনায় ধর্ষণ ও নির্যাতনের শিকার ৩ নারী

শনিবার, নভেম্বর ২৮, ২০২০

জাহিন সিংহ, সাভার থেকে : সাভারে এক নারী শ্রমিককে ধর্ষণের অভিযোগে এক গার্মেন্টস শ্রমিককে আটক করেছে পুলিশ। শনিবার দুপুরে উপজেলার উলাইলের কর্ণপাড়া এলাকার ভাড়াবাড়ি থেকে পুলিশ তাকে আটক করে।

আটক ধর্ষণকারীর নাম নাহিদ মিয়া (৩০)। সে কুড়িগ্রাম জেলার রাজারহাট থানার রুটি গ্রামের ইয়াসিন আলীর ছেলে।

পুলিশ জানায়, সাভারের মজিদপুরে ভাড়া বাড়িতে থেকে উলাইলের কর্ণপাড়া এলাকায় ডেনিটেক্স গার্মেন্টস চাকুরী করতে গিয়ে ওই নারীর সাথে নাহিদ মিয়া নামে যুবকের সাথে পরিচয় হয়। একপর্যায়ে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গঠে উঠলে বিয়ের প্রলোভনে কয়েকবার ওই নারীকে ধর্ষণ করে। পরে শনিবার সকালে ওই নারীকে আবারও ধর্ষণ করলে ধর্ষণকারী নাহিদকে প্রধান আসামি করে সাভার মডেল থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেন ভুক্তভোগী।

এঘটনায় আসামি নাহিদ মিয়াকে কর্ণপাড়া এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। এছাড়া ধর্ষণের শিকার নারীকে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ওয়ানস্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে ভর্তি করা হয়।

অন্যদিকে সাভার পৌর এলাকার রাজাশন মহল্লার একটি বাড়িতে এক নারীকে ১৫ দিন আটকে রেখে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে ৪ যুবকের বিরুদ্ধে। নির্যাতের প্রতিবাদ করায় রের বিভিন্নস্থানে সিগারেটের ছ্যাঁকা দেওয়া হয় বলে অভিযোগ করেন ভুক্তভোগী নারী। পরে আশঙ্কাজনক অবস্থায় উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য তাকে সাভার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

এদিকে সাভারের ইমান্দিপুর এলাকায় যৌতুকের টাকা না পেয়ে স্ত্রীকে পিটিয়ে আহত করেছে তার স্বামী। তাকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

সাভার মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সাইফুল ইসলাম বলেন, এসব ঘটনায় থানায় আলাদা মামলা দায়ে করেছেন ভুক্তভোগীরা। তদন্ত করে দোষীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলেও তিনি জানান।