আংশিক আর আহ্বায়ক কমিটি নিয়ে বিএনপির ১১ অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠন

বৃহস্পতিবার, নভেম্বর ২৬, ২০২০

ঢাকা: দিন-মাস-বছর পেরিয়ে শেষ হয় কমিটির মেয়াদ। কিন্তু পূর্ণাঙ্গ হয় না যুবদল-স্বেচ্ছাসেবক দলের কমিটি। অর্ধেক মেয়াদ পার করা ছাত্রদলও চলছে আংশিক কমিটিতে। যেসব সংগঠনের আহবায়ক কমিটি হয়েছে, সেখানেও ফলাফল একই। মেয়াদউত্তীর্ণ আর আংশিক কমিটিতে এভাবেই চলছে বিএনপির ১১ অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠন। বিএনপির গঠনতন্ত্র অনুসারে ৯টি সংগঠনকে অঙ্গ এবং ছাত্রদল ও শ্রমিকদলকে সহযোগী সংগঠনের স্বীকৃতি দেয়া হয়েছে।

২০১৬ সালের অক্টোবরে ঘোষণা করা হয় জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দলের সুপার সেভেন কমিটি।সাত নেতা দিয়েই শেষ হয় কমিটির নির্ধারিত মেয়াদ। তারপর গেল সেপ্টেম্বরে ঘোষণা করা হয়েছে ১৪৯ সদস্যের আংশিক কমিটি। যুবদলের অবস্থাও একই। ৫ নেতা দিয়ে ২০১৭ সালের জানুয়ারিতে যুবদলের ঘোষিত কমিটির নির্ধারিত মেয়াদও শেষ হয় পূর্ণাঙ্গ কমিটি ছাড়াই। মেয়াদ শেষে গেল ফেব্রুয়ারিতে ১০৯ জনকে নতুন করে যুক্ত করে যুবদল। এখনো পূর্ণাঙ্গ হয়নি এ কমিটি। আর মেয়াদের অর্ধেক পার হয়ে গেলেও পূর্ণাঙ্গ হয়নি ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় কমিটি।

জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দলের সাংগঠনিক সম্পাদক ইয়াছিন আলী বলেন, অনেক সময় দেখা যায় আমাদের সভাপতি গ্রেপ্তার আবার উনি বের হলে সাধারণ সম্পাদক গ্রেপ্তার অথবা দেখা যায় আমরা তিনজনই গ্রেপ্তার। এভাবে বার বার গ্রেপ্তার হওয়ার কারণে আমাদের সংগঠনের কার্যক্রম দুই বছর পিছিয়ে গেছে।

জাতীয়তাবাদী যুবদলের যুগ্ম সম্পাদক নুরুল ইসলাম নয়ন বলেন, কমিটির মেয়াদ তিন বছর শেষ হয়ে এখন চতুর্থ বছরে পড়েছে। খুব বেশি মেয়াদ উত্তীর্ণ হয়ে গেছে বলে আমি মনে করি না। আমার কাছে মনে হয় শুধু মেয়াদটাকে প্রাধান্য না দিয়ে সাংগঠানিক কার্যক্রমকে গুরুত্ব দেয়া উচিত।

জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের সহ-সভাপতি হাফিজুর রহমান হাফিজ বলেন, দমন-নিপীড়ন আর হামলা-মামলার কারণে আমরা কমিটির কার্যক্রম পূর্ণাঙ্গ করতে পারি নি। খুব দ্রুত সময়েই আমরা পূর্ণাঙ্গ কমিটি দিতে পারবো।

পূর্ণাঙ্গ কমিটি থাকলেও মেয়াদ শেষ জাতীয়তাবাদী মহিলা দল, শ্রমিক দলসহ বেশ কটি সংগঠনের।

জাতীয়তাবাদী শ্রমিক দলের সভাপতি আনোয়ার হোসেন বলেন, আমি ২০১৬ সালেই আকমাদের নেত্রীকে বলেছি যে আমাদের কমিটি দুই বছর অতিক্রম করেছে আপনি আমাদের সম্মেলন করে দেন। তিনি তখন করে দিবেন বলেছেন কিন্তু পরে অনেক কারণে আর তা করা হয়নি।

জাতীয়তাবাদী মহিলা দলের সাধারণ সম্পাদক সুলতানা আহমেদ বলেন, জাতীয়তাবাদী মহিলা দল একমাত্র সংগঠন যারা এত প্রতিকূলতার মধ্যেও পূর্ণাঙ্গ কমিটি করতে পেরেছে। কোন সংগঠনের কমিটি পূর্ণাঙ্গ করা হলেই নেতা কর্মী চাঙ্গা সয়।

জাতীয়তাবাদী মুক্তিযোদ্ধা দলের সাধারণ সম্পাদক সাদেক খান বলেন, সংগঠন চাঙ্গা করতে হলে নিয়মিত কাউন্সিল হওয়া দরকার। এতে নতুন নেতৃত্ব তৈরি হয়। সংগঠনের বিকাশ লাভের জন্য নিয়মিত কাউন্সিল এবং ভোটের মাধ্যমে নেতৃত্ব তৈরি করা বাঞ্চনীয়।

মেয়াদ শেষ হবার ২০ বছর পর কৃষক দলের এবং ১০ বছর পর মৎস্যজীবী দলের আহবায়ক কমিটি করা হয় ২০১৯ সালের ফেব্রুয়ারিতে। দুমাস পর ১৪ বছরের পুরোনা ওলামা দলের কমিটি এবং একযুগের বেশি পার করা তাঁতীদলের কমিটিও ভেঙ্গে আহবায়ক কমিটি করা হয়। নির্দেশ দেয়া হয় তিন মাসের মধ্যে কাউন্সিলের মাধ্যমে পূর্ণাঙ্গ কমিটি করার। সেই থেকে আহবায়ক কমিটি দিয়েই চলছে সংগঠনগুলো। সূত্র: ডিবিসি