চতুর্থবারের বিয়েতে স্বামীকে পাত্রী খুঁজতে সাহায্য আগের তিন স্ত্রীর!

মঙ্গলবার, নভেম্বর ২৪, ২০২০

ঢাকা : প্রথম বিয়ে করার আগে যেকোনও মানুষেরই উত্তেজনা থাকে লাগামছাড়া। কিন্তু বিয়ে করার পর সেই উত্তেজনা যেন কোথায় চলে যায়। দ্বিতীয় বিয়ের কথা বললেই সংজ্ঞা হারানোর জোগাড় হন অনেকেই। তাই তো কথায় বলে, নেড়া বেলতলায় একবারই যায়।

কিন্তু পাকিস্তানের এক ব্যতিক্রমী যুবক সম্প্রতি আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে চলে এসেছেন। তিনি একবার নয়, এই নিয়ে চতুর্থবার বিয়ে করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। আর সবচেয়ে অবাক করা ব্যাপার হল এবার তাঁকে পাত্রী খুঁজতে সাহায্য করছেন নিজের তিন স্ত্রী।

পাকিস্তানের শিয়ালকোটের বাসিন্দা আদনান। প্রথমবার মাত্র ১৬ বছর বয়সে বিয়ে হয় তাঁর। ছাত্রাবস্থাতেই প্রথম বিয়ে হয় তাঁর। স্ত্রী সম্বলের সঙ্গে বেশ সুখেই দিন কাটছিল। তা সত্ত্বেও চার বছর কাটতে না কাটতেই দ্বিতীয় বিয়ের কথা ভাবেন তিনি। যেমন ভাবনা, তেমনই কাজ। দ্বিতীয়বার গাঁটছড়া বাঁধেন আদনান। বাড়িতে নিয়ে আসেন শাবানাকে। গত বছর তৃতীয় বিয়ে সেরেছেন পাকিস্তানি যুবক। শাহিদা হলেন তাঁর তৃতীয় স্ত্রী। বর্তমানে পাঁচ সন্তানের বাবা আদনান। প্রথম স্ত্রীর তিনটি, দ্বিতীয় স্ত্রীর নিজের বলতে একটিই সন্তান। তবে দ্বিতীয় স্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা করে একটি সন্তান দত্তকও নিয়েছেন আদনান। তৃতীয় স্ত্রীর কোনও সন্তান নেই। এবার পালা চতুর্থ বিয়ের।

আদনানের একটাই শর্ত চতুর্থ স্ত্রীর নামের আদ্যক্ষর হতে হবে ‘স’ বা ‘শ’। এছাড়া পাত্রী খোঁজার ক্ষেত্রে তেমন নাকি কোনও দাবি নেই পাঁচ সন্তানের বাবার। সবচেয়ে অবাক করা কাণ্ড হল আদনানের জন্য পাত্রীর খোঁজ করছেন তাঁর তিন স্ত্রী। তাঁরাই নাকি স্বামীর মন বুঝে পছন্দমতো ভাবী বউ খোঁজার চেষ্টা করছেন। আদনানের দাম্পত্য কাহিনি যে সকলকে অবাক করেছে তা নিয়ে দ্বিমত নেই। অনেকের মনেই প্রশ্ন জেগেছে তিন স্ত্রীকে কীভাবে সামলান আদনান? ওই যুবক যদিও নিজেকে এ বিষয়ে রীতিমতো ভাগ্যবান বলে দাবি করেছেন। তিনি জানান, একটি বাড়িতেই তিন স্ত্রীকে নিয়ে থাকেন। তিন সতীনের মধ্যে ঝগড়াঝাটিও নেই। বরং দিব্যি মিলেমিশে থাকেন তাঁরা। তবে তাঁদের আক্ষেপ একটাই স্বামী বিশেষ সময় দিতে পারেন না। চতুর্থ স্ত্রীর সঙ্গে মানিয়ে নেওয়ার জন্য প্রস্তুত আদনানের তিন স্ত্রী। অনেকেই আদনানের মতো কেন কপাল হল না, সেই ভাবনায় মগ্ন। তবে কেউ কেউ এমন দাম্পত্য কাহিনি শুনে যথেষ্ট বিরক্ত।