প্রধানমন্ত্রীকে রাস্তায় নেমে আসার আহবান জাফরুল্লাহ’র

শুক্রবার, অক্টোবর ২৩, ২০২০

ঢাকা: গণতন্ত্রের নামে ছেলেখেলা করে লাভ নেই বলে মন্তব্য করেছেন গণস্বাস্থ্যের প্রতিষ্ঠাতা এবং ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী। তিনি বলেন, ‘বর্তমান সময়ে ভিন্ন নামে দেশে বাকশাল প্রতিষ্ঠিত হতে চলেছে। এটা চলতে পারে না। প্রধানমন্ত্রী আপনাকে আহবান করছি অনুগ্রহ করে রাস্তায় আসেন। দেখেন এবং আমাদের কথা বলার অধিকারটুকু দেন আর কিছু চাই না।’

শুক্রবার (২৩ অক্টোবর) জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে আয়োজিত এক মানববন্ধনে তিনি এসব কথা বলেন।

জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, দেশের অনেকেই বিশ্বাস করে, প্রচার করা হয় আমাদের প্রধানমন্ত্রী গণতন্ত্রের ধাত্রী এবং তিনি গণতন্ত্রের বিকাশ ঘটাবেন। কিন্তু দুর্ভাগ্যবশত ওনার সকল কার্যকলাপ সম্পূর্ণ গণতন্ত্রবিরোধী। রাজনীতি করার এবং বক্তব্য দেওয়ার অধিকার আমার আছে। কিন্তু সেটা আমাকে করতে দেওয়া হচ্ছে না।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী (শেখ হাসিনা) যতগুলো কাজ করছেন তা ভুল প্রমাণিত হচ্ছে। যেমন নারী নির্যাতন ও ধর্ষণের বিরুদ্ধে ফাঁসির আইন করেছেন। এই ফাঁসি দিয়ে পৃথিবীর কোথাও কোনো পরিবর্তন হয়নি। আপনারা দেখেন আইন করার আগে এবং পরে। নারী নির্যাতন ও ধর্ষণ কমেনি বরং বেড়েছে। বাড়তে বাড়তে এখন বাড়ির শিশু, মাদরাসা ও স্কুলেও হচ্ছে। এত বড় ভুল উনি কি করে করলেন? কারণ উনি বন্দি আছেন, উনি অন্তরীণ।‌ গত এক বছরে ওনাকে কি কেউ পথে দেখেছেন। উনাকে দেখে হাত নাড়তে পেরেছেন। কারণ ওনাকে বন্দি করে রাখা হয়েছে। অন্তরীণ করে রেখেছে। মানসিকভাবে উনি অত্যন্ত চিন্তিত।

প্রধানমন্ত্রীর সুস্থতা কামনা করে জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, প্রধানমন্ত্রী আপনার সুস্থতা কামনা করি। আপনাকে আহবান করছি আপনি অনুগ্রহ করে রাস্তায় আসেন। দেখেন এবং আমাদের কথা বলার অধিকারটুকু দেন আর কিছু চাই না। আপনার দয়া আমরা চাই না, আমরা আমাদের অধিকার চাই। মানুষের অধিকার দিলে, প্রকৃত সত্য আপনি পাবেন। আপনার দেশ শাসনের সুবিধা হবে।

প্রধান নির্বাচন কমিশনারকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, আমাদের অন্ধ নুরুল হুদা সাহেব আর কতদিন ক্ষমতায় রাখবেন জানিনা। এই ভদ্রলোক নির্বিবাদে কিভাবে এত মিথ্যা কথা বলেন জানিনা। খোদা ওনাকে দোজখে নিয়েও হয়তো খুশি হবেন না। আর বিচারকদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হতে হলে জজ সাহেবদের বিবেকবান করতে হবে। জজ সাহেবরা এত ভীত যে এখনো লুকিয়ে থাকেন। ভার্চুয়াল কোর্ট করে বেড়ান।