করোনায় আক্রান্ত ছিলেন পূর্ণিমা, জানতেন না নির্মাতা

সোমবার, অক্টোবর ১৯, ২০২০

বিনোদন ডেস্ক : চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে নঈম ইমতিয়াজ নেয়ামূল পরিচালিত ‘গাঙচিল’ সিনেমার শুটিং সম্পন্ন হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু সিনেমাটির কেন্দ্রীয় চরিত্রের অভিনেত্রী পূর্ণিমাসহ কয়েকজন শিল্পী হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়ায় তখন কাজ বাকি রেখেই শুটিং বন্ধ করতে হয় নির্মাতাকে।

তবে সবকিছু ছাপিয়ে আগামী ১৭ অক্টোবর থেকে আবারও ‘গাঙচিল’র শেষ অংশের শুটিং শুরু হয়। কিন্তু ফের বন্ধ হয়ে গেলো ছবিটির শুটিং।

গতকাল শুটিংয়ে অংশ নেন চিত্রনায়িকা পূর্ণিমা ও চিত্রনায়ক ফেরদৌস। কিন্তু শুটিংয়ে অংশ নেওয়ার পর হঠাৎ শরীর খারাপ লাগলে দ্রুত শুটিং শেষ করে বাসায় ফিরেন পূর্ণিমা। কিন্তু রাতে গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি। যার ফলে আজ শুটিং বন্ধ রাখতে বাধ্য হয় পরিচালক।

চলতি মাসের শুরুতে চিত্রনায়িকা পূর্ণিমার করোনা রিপোর্ট পজিটিভ আসে। নিজ বাসায় আইসোলেশনে থেকে চিকিৎসা নেন তিনি।

এরপর গত ১৪ অক্টোবর তার রিপোর্ট নেগেটিভ আসে। এরপর দু’দিন বিশ্রাম নিয়ে শনিবার (১৭ ডিসেম্বর) নঈম ইমতিয়াজ নেয়ামূল পরিচালিত ‘গাঙচিল’র শুটিংয়ে অংশ নেন এই অভিনেত্রী।

এসব তথ্য জানিয়ে নঈম ইমতিয়াজ নেয়ামূল বলেন, পূর্ণিমা আপা করোনা আক্রান্ত ছিলেন সেটা আমি জানতাম না, পরে জেনেছি। তবে তিনি সুস্থ হয়ে শুটিংয়ে অংশ নিয়েছিলেন। কিন্তু শনিবার শুটিং চলাকালে উনার প্রচণ্ড জ্বর ও শ্বাসকষ্ট শুরু হয়। তারপর বাধ্য হয়ে শুটিং বন্ধ করে দেওয়া হয়।

তিনি আরও বলেন, আপা জানালেন, তার শারীর অবস্থা একটু ভালো হয়েছে তাই আজ থেকে আবার শুটিং করছি।

২০১৮ সালের ১৯ সেপ্টেম্বর জমকালো আয়োজনে ‘গাঙচিল’র মহরত অনুষ্ঠিত হয়। গত বছর ৬ ফেব্রুয়ারি থেকে নোয়াখালীতে শুরু হয় শুটিং। এতে ফেরদৌস সাংবাদিক চরিত্রে ও এনজিও কর্মীর চরিত্রে অভিনয় করছেন পূর্ণিমা। গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে আছেন কলকাতার অভিনেত্রী ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত।

২০১৪ সালে প্রকাশিত আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের ‘গাঙচিল’ উপন্যাস অবলম্বনে সিনেমাটি নির্মিত হচ্ছে।

ইচ্ছেমতো এবং নুজহাত ফিল্মসের প্রযোজনায় সিনেমাটিতে তারিক আনাম খান, আফজাল হোসেন ও আনিসুর রহমান মিলনসহ আরও অনেকে অভিনয় করছেন।

যৌথভাবে ‘গাঙচিল’র চিত্রনাট্য লিখেছেন বাংলাদেশ থেকে নঈম ইমতিয়াজ নেয়ামূল, মারুফ রেহমান, পান্থ শাহরিয়ার ও কলকাতার প্রিয় চট্টোপাধ্যায়।