বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ

শনিবার, অক্টোবর ১৭, ২০২০

দিনাজপুর: বিয়েতে রাজি না হওয়ায় বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে এক স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ করা হয়েছে। শুক্রবার (১৬ অক্টোবর) রাতে দিনাজপুরের বিরামপুর উপজেলার মাহমুদপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

ভুক্তভোগী স্থানীয় একটি বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী। এ ঘটনায় রাতেই বিরামপুর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেছেন ছাত্রীর বাবা।

শনিবার (১৭ অক্টোবর) সকালে অভিযান চালিয়ে অভিযুক্ত যুবক ও তার বন্ধুকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গ্রেফতারকৃতদের দুপুরে আদালতে সোপর্দ করা হয়। পরে তাদের কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন বিচারক।

একই সঙ্গে ধর্ষণের শিকার ছাত্রীকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য দিনাজপুরের এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ফরেনসিক বিভাগে পাঠানো হয়।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন- বিরামপুর উপজেলার মাহমুদপুর গ্রামে সিরাজুল ইসলামের ছেলে নাহিদ ইসলাম (২০) ও একই গ্রামের এনামুল হকের ছেলে সুমন আহমেদ (২৪)।

বিরামপুর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনিরুজ্জামান মনির বলেন, গ্রেফতারকৃত দুই যুবককে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

মামলার এজাহারের বরাতে ওসি বলেন, দীর্ঘদিন ধরে বিরামপুর উপজেলার মাহমুদপুর গ্রামের ওই ছাত্রীকে প্রথমে প্রেমের এবং পরে বিয়ের প্রস্তাব দিয়ে বিভিন্নভাবে উত্ত্যক্ত করে আসছিল নাহিদ। কিন্তু এসব প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করে ছাত্রী।

শুক্রবার রাত ৮টার দিকে বাড়িতে কেউ না থাকার সুযোগে বন্ধু সুমনকে নিয়ে ছাত্রীর বাড়িতে যায় নাহিদ। পরে ছাত্রীকে তুলে এনে কলাবাগানে নিয়ে ধর্ষণ করে নাহিদ। এ সময় নাহিদের বন্ধু সুমন পাহারায় ছিল। স্থানীয়রা ছাত্রীর চিৎকারের শব্দ শুনে ঘটনাস্থলে এলে তারা পালিয়ে যায়।

ওসি মনিরুজ্জামান মনির বলেন, ছাত্রীর বাবা থানায় মামলা করেছেন। পরে অভিযান চালিয়ে দুই যুবককে গ্রেফতার করা হয়। ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য ছাত্রীকে দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।