দীপিকা-সারাসহ ৪ নায়িকার টাকার সিন্দুকে হাত

মঙ্গলবার, সেপ্টেম্বর ২৯, ২০২০

বিনোদন ডেস্ক : বলিউড অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর ৮৬ দিন পর তার বান্ধবী অভিনেত্রী রিয়া চক্রবর্তীকে টানা তিন দিন জিজ্ঞাসাবাদ শেষে গেল ৮ সেপ্টেম্বর মাদককাণ্ডে গ্রেফতার করে ভারতের মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ ব্যুরো (এনসিবি)। আগামী ৬ অক্টোবর পর্যন্ত মুম্বাইয়ের বাইকুল্লা জেলে থাকতে হচ্ছে আলোচিত এই বাঙালি অভিনেত্রীকে।মাদককাণ্ডে রিয়ার ভাই শৌভিকও গ্রেফতার হয়েছেন।

সম্প্রতি রিয়া গ্রেফতার হওয়ার পর সুশান্তের মৃত্যুরহস্য উদঘাটনে মাদককাণ্ডে একে একে পাতৌদি নবাব সাইফ আলি খানের কন্যা বলিউড অভিনেত্রী সারা আলি খান ও শক্তি কাপুরের কন্যা অভিনেত্রী শ্রদ্ধা কাপুর, বলিউডের সবচেয়ে দামি অভিনেত্রী দীপিকা পাডুকোন ও এমনকি রাকুল প্রীত সিংয়েরও নাম আসতে থাকে।

এরইমধ্যে গেল ২৫ ও ২৬ সেপ্টেম্বর বলিউডের প্রথমসারির এই ৪ নায়িকাকেই জিজ্ঞাসাবাদ করেছে এনসিবি। দীর্ঘসময়ের জিজ্ঞাসাবাদে ৪ নায়িকাই দাবি করেছেন, তারা কোনও দিন মাদক স্পর্শও করেননি। তদন্তের স্বার্থে ৪ জনেরই মোবাইল ফোন জব্দ করা হয়েছে।

মাদক সংশ্লিষ্টতা নিয়ে চলমান এই তদন্তে এবার নায়িকাদের আর্থিক সঞ্চয়ে হাত পড়েছে। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম আনন্দবাজার পত্রিকার খবরে বলা হয়েছে, এই ৪ নায়িকার ক্রেডিট কার্ড বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। তাদের ব্যাংক অ্যাকাউন্ট স্টেটমেন্টও খতিয়ে দেখছে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা এনসিবি।

এই ৪ নায়িকার ক্রেডিট কার্ডের মাধ্যমে টাকার লেনদেনও ইতোমধ্যে খতিয়ে দেখা হয়েছে। মূলত কোনও মাদক বিক্রেতার সঙ্গে কখনও আর্থিক লেনদের তাদের ক্রেডিট কার্ড থেকে হয়েছে কিনা- সেটি জানার উদ্দেশ্যেই এমন পদক্ষেপ।

আনন্দবাজার পত্রিকার প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সুশান্ত সিং রাজপুতের ম্যানেজার জয়া সাহাকে দফায় দফায় জিজ্ঞাসাবাদের সময় তার স্বীকারোক্তি এবং ফোনের হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট থেকে বলিউডের আরও অনেক নাম খুঁজে পায় এনসিবি। সেখানেই ২০১৭ সালে একটি গ্রুপ চ্যাট উঠে আসে। ওই চ্যাটে লেখা ‘ডি’ ও ‘কে’র সূত্র ধরেই দীপিকা ও তার ম্যানেজার কারিশমার বিরুদ্ধে সমন জারি করে এনসিবি।

গেল ২২ সেপ্টেম্বর সুশান্তের সাবেক ম্যানেজার জয়া সাহা জিজ্ঞাসাবাদে এনসিবিকে জানিয়েছেন, রিয়া, শ্রদ্ধা ও সুশান্তের জন্য তিনিই সিবিডি অয়েল (গাঁজা থেকে নিষ্কৃত তেলজাতীয় পদার্থ) কিনে দিয়েছিলেন। রাকুল ও সারার নাম বয়ানে উল্লেখ করেন মাদককাণ্ডে অন্যতম অভিযুক্ত রিয়া।

এর আগে রিয়া চক্রবর্তী জবানবন্দিতে জানিয়েছেন, সারা আলি খানের সঙ্গে ‘কেদারনাথ’ ছবির শুটিংয়ের সময় থেকেই মাদকে আসক্ত হয়ে পড়েন সুশান্ত। ওই ছবিতে সুশান্তের সহ-অভিনেত্রী ছিলেন সারা। তারা তখন গোপনে সম্পর্কেও জড়িয়েছিলেন।

গেল ১৪ জুন মুম্বাইয়ের বান্দ্রার বাড়ি থেকে সুশান্ত সিং রাজপুতের ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করা হয়। ২৫ জুলাই সুশান্তের তার বাবা কে কে সিং আত্মহত্যায় প্ররোচনা ও বিষণ্নতার জন্য রিয়া চক্রবর্তীকে দায়ী করে মামলা করেন।

সুশান্তের মৃত্যুর ঘটনায় করা মামলায় রিয়ার বাড়ি থেকে ল্যাপটপসহ বিভিন্ন ইলেক্ট্রনিক ডিভাইস উদ্ধার করা হয়। একপর্যায়ে রিয়ার হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাপ থেকে তার মাদক সেবনের বিষয়টি প্রকাশ্যে আসে। এরপর রিয়ার মাদককাণ্ড নিয়ে এনসিবি পৃথক তদন্ত শুরু করে। এক পর্যায়ে গ্রেফতার হন রিয়া চক্রবর্তী।