ম্যান ইউর নাটকীয় জয়

রবিবার, সেপ্টেম্বর ২৭, ২০২০

স্পোর্টস ডেস্ক : ক্রিস্টাল প্যালেসের বিপক্ষে ১-৩ গোলের হার দিয়ে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের নতুন মৌসুম শুরু করেছিল ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। ব্রাইটনের বিপক্ষে দ্বিতীয় ম্যাচেও পেয়ে বসেছিল পয়েন্ট হারানোর শঙ্কা। তবে ম্যাচের ১০০তম মিনিটে পাওয়া অবিশ্বাস্য এক গোলে নাটকীয় জয় পেয়েছে ইংল্যান্ডের ঐতিহ্যবাহী ক্লাবটি।

শনিবার রাতে ব্রাইটনের মাঠে খেলতে গিয়ে ড্র করতে বসেছিল ম্যান ইউ। তবে স্বাগতিকদের ভুলের কারণে পাওয়া জোড়া গোলে পূর্ণ তিন পয়েন্ট নিয়েই মাঠ ছাড়তে পেরেছে তারা। ম্যাচের অতিরিক্ত যোগ করা সময়ের ১০ম মিনিটে করা গোলে ৩-২ ব্যবধানে জিতেছে ম্যান ইউ, পেয়েছে নতুন মৌসুমের প্রথম জয়।

পুরো ম্যাচে দুর্দান্ত খেললেও দুর্ভাগাই বলতে হয় ব্রাইটনকে। ম্যাচের পুরো সময়ে ম্যান ইউর সাতটি আক্রমণের বিপরীতে ব্রাইটন করেছিল ১৮টি আক্রমণ। তাদের কপাল এতোটাই পোড়া যে প্রথমার্ধে তিনটি এবং দ্বিতীয়ার্ধে দুইটি শট প্রতিহত হয়েছে বার পোস্টে লেগে। এর সঙ্গে আবার তারা হজম করেছে আত্মঘাতী ও পেনাল্টি গোল। যার ফলে জয় আর পাওয়া হয়নি ব্রাইটনের।

ম্যাচের প্রথম গোলটি করেছিল স্বাগতিকরাই। ৪০ মিনিটের সময় ব্রাইটন ডিফেন্ডার তারিক ল্যাম্পটিকে ফাউল করেন ম্যান ইউর মিডফিল্ডার ব্রুনো ফার্নান্দেজ। ফলে পেনাল্টি পায় ব্রাইটন। সেখান থেকে গোল করে দলকে এগিয়ে দেন নিল মাউপে। তবে মিনিট তিনেক পরেই আত্মঘাতী গোল করে ম্যান ইউকে সমতায় বসান ব্রাইটনের সেন্ট্রাল ডিফেন্ডার লুইস ডাঙ্ক।

দ্বিতীয়ার্ধে ফিরে দলকে এগিয়ে দেন ম্যান ইউর ইংলিশ ফরোয়ার্ড মার্কাস রাশফোর্ড। ম্যাচের ৫৫ মিনিটের সময় ডি-বক্সের ভেতর থেকে নেয়া তার শট ব্রাইটনের এক খেলোয়াড়ের গায়ে লেগে দিক বদলে ঢুকে যায় জালে। এর মিনিট দুয়েক আগেও বল জালে প্রবেশ করিয়েছিলেন রাশফোর্ড। তবে সেটি বাতিল হয়ে যায় অফসাইডের কারণে।

১-২ গোলে পিছিয়ে পড়া ব্রাইটন নিজেদের সর্বোচ্চ চেষ্টা করে ম্যাচে ফেরার জন্য। তখনও তাদের দুইটি শট বার পোস্টে লেগে ফিরে আসে। ফলে আর গোল পাওয়া হয়নি তাদের। তবে ম্যাচের অতিরিক্ত যোগ করা সময়ে পঞ্চম মিনিটে গিয়ে সমতাসূচক গোল করে বসেন সলি মার্চ। ম্যাচে ফিরে আসে ২-২ ব্যবধানে সমতা।

তখন মনে হচ্ছিল জয়বঞ্চিতই থাকবে ম্যান ইউ। কিন্তু এরপর দেখা দেয় নাটকীয়তা। ম্যাচের শেষ বাঁশি বাজার ঠিক আগে হ্যারি মাগুইরের একটি হেড গোললাইন থেকে ক্লিয়ার করেন মার্চ। কিন্তু তার আগে বলটি লাগে মাউপের হাতে। ফলে ভিডিও এসিস্ট্যান্ট রেফারির সাহায্য নিয়ে বাজানো হয় পেনাল্টির বাঁশি। গোলের সহজতম সুযোগটি কাজে লাগান ব্রুনো ফার্নান্দেজ, দলকে এনে দেন অবিশ্বাস্য এক জয়।