“আমি কোথাও ভিপি নুরকে ধর্ষক বলে উল্লেখ করি নাই”

শুক্রবার, সেপ্টেম্বর ২৫, ২০২০

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিপি নুরুল হক নুরের বিরুদ্ধে কোথাও ধর্ষক বলে উল্লেখ করি নাই। অপরাধীর সাহায্যকারী হিসেবে উল্লেখ করেছেন বলে জানিয়েছেন ঢাবি শিক্ষার্থী ফাতেমা আক্তার। শুক্রবার ২৫ সেপ্টেম্বর জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা জানান।

তিনি বলেন, আমি কোন প্রকার ব্যক্তি, সংগঠন কিংবা রাজনৈতিক দলের প্রবঞ্চনায় তাদের বিরুদ্ধে মামলা করিনি। আমার বিরুদ্ধে যারা কুৎসা রটাচ্ছে তারা এটা প্রমাণ করতে না পারলে আমি তাদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নিতে বাধ্য হব।

তিনি বলেন, আসামিরা অনেক জনপ্রিয় তাই হয়তো সত্যটা ঢেকে যাচ্ছে। যারা জনপ্রিয় তারা কি অন্যায় করে না? তাদের শুধু মান সম্মান আছে। আমার কি মান সম্মান নেই? ভিপি নুর বলেছেন আমি টাকার বিনিময় এরকম করছি। তিনি যেন এটা প্রমাণ করে দেন। আর যদি প্রমাণ করতে না পারেন তাহলে আমি তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেব।

তিনি বলেন, আমি যখন ছাত্র অধিকার পরিষদের কাছে গিয়েছিলাম তখন ফেসবুক মেসেঞ্জারে এই সমস্যার সমাধান নামের একটি গ্রুপ খুলে ছিল। সেই গ্রুপের সত্যটা য‌দি প্রকাশ করা না হয়। তাহলে আমি তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেব। সেই গ্রুপে যারা ছিল তারা হল: কেন্দ্রীয় যুগ্ম আহ্বায়ক শাকিল উজ্জামান, মনজুর মোর্শেদ মামুন, আরিফ হোসেন, এ পি এম সুহেল, জসীমউদ্দীন, লুৎফুন নাহার লুমা, মাসুদ মুন্নাফ, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ সম্পাদক আবু বক্কর খান, খুলনা জেলা শাখার আহ্বায়ক মোঃ আমিনুর রহমান, রাজশাহী জেলার যুগ্ন আহবায়ক নিশাত সুলতানা শাকী, কেন্দ্রীয় যুগ্ম আহ্বায়ক তারেক রহমান, শামীম আহমেদ।

তিনি আরো বলেন, মামলা করার তিন চার দিন হয়ে গেল এখন পর্যন্ত কাউকে গ্রেফতার করা হলো না। এখানে যদি আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর গাফিলতি থাকে তাহলে তাদের বিষয় নিয়ে আমি কথা বলব। আমি আরো কঠোর হব। আমি অনেক কিছুই হারিয়ে ফেলেছি। এখানে তো হারানোর কিছু নাই।

ভিপি নুরের সাথে নীলক্ষেতে দেখা করার বিষয় নিয়ে তিনি বলেন, তিনি বলেছেন যে নীলক্ষেতে আমার সাথে দেখা করেন নাই। তিনি যেন এটা পরিষ্কার করেন এবং প্রমাণ করেন।

তিনি বলেন, আমি ভিপি নুরকে ভোট দিয়েছি তার কাছে নিজে বিচার চেয়ে‌ছি। তিনি এমন একটা ব্যক্তি হয়ে কিভাবে এই বিষয়গুলো রাজনীতিক হিসেবে নিয়ে গেলেন। সমস্যার সমাধান মেসেঞ্জার গ্রুপ খোলার পরে সেখানে হাসান আল মামুন বলেছে আদালতে যেতে। তাহলে এখন কেন বলছে এটা উদ্দেশ্যপ্রণোদিত?

এ সময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে অনুরোধ জানিয়ে তিনি বলেন, সন্তান হিসেবে নয় দেশের একজন নাগরিক হিসাবে আপনার কাছে সুষ্ঠু বিচার দাবি করছি। আপনার যদি মনে হয় এটা মিথ্যে বা এটা যদি মনে করেন আমি মারা গেলে আমার মৃত্যুর পরে বিচার হবে তাহলে বলেন আমি সে প্রস্তুতি নিচ্ছি।

তিনি আরো বলেন, নীলক্ষেতে যখন ভিপি নুর আমার সাথে দেখা করেন। তখন তিনি বলেন এই বিষয়টা নিয়ে বাড়াবাড়ি করো না। বেশি বাড়াবাড়ি করলে আমাদের গ্রুপের মাধ্যমে পতিতা হিসেবে প্রকাশ করব।