সাতলা ইউপি উপনির্বাচন: আ. লীগের প্রার্থীর ছড়াছড়ি, সংকটে বিএনপি

বৃহস্পতিবার, সেপ্টেম্বর ২৪, ২০২০

বরিশাল: বরিশালের উজিরপুর উপজেলার সাতলা ইউনিয়ন পরিষদের উপনির্বাচনকে ঘিরে চেয়ারম্যান পদে বিএনপির প্রার্থী সংকট দেখা গেলেও সরকারি দল আওয়ামী লীগের প্রায় এক ডজন প্রার্থী মনোনয়ন পাওয়ার জন্য মাঠে দৌড়ঝাঁপ করছেন। তার মধ্যে কয়েকজন ডামি প্রার্থীও রয়েছে। কে হচ্ছেন আওয়ামী লীগের প্রার্থী তা নির্ধারণ করতে উজিরপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতারা গত শনিবার দিনভর নানা আলোচনা শেষে ১২ জন প্রার্থীর তালিকা তৈরি করেন। পরে ওই তালিকা জেলা কমিটির সভাপতি আবুল হাসানাত আবদুল্লাহর নিকট পাঠানো হয়েছে বলে জানা গেছে। সবদিক বিবেচনা করে তিনিই চূড়ান্ত সিদ্বান্ত দিবেন। সেসময় জানা যাবে কে হচ্ছেন সাতলা ইউনিয়নের নৌকার কাণ্ডারী।

উজিরপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও পৌর মেয়র মো. গিয়াসউদ্দিন বেপারী এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এদিকে, বিএনপির প্রার্থী সংকটের কারণে দলটির শেষ ভরসা বিগত নির্বাচনের প্রার্থী মেজবাহ উদ্দিন। উজিরপুর বিএনপির একাধিক নেতা জানিয়েছেন, বর্তমান সরকারের আমলে ভোটাররা আগ্রহ হারিয়ে ফেলার কারণে অনেক হেভিওয়েট প্রার্থীরাও নির্বাচনে প্রার্থী হতে চান না। দলের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী তারা নির্বাচনে অংশ নিচ্ছেন। দলের একক প্রার্থী হিসাবে মেজবাহ উদ্দিন মনোনয়ন পাবেন।

সাতলা ইউনিয়ন পরিষদ উপনির্বাচনের ভোট ২০ অক্টোবর। ওই দিন ইউপির ২২ হাজার ৫০৭ জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করার সুযোগ পাবেন।

জেলা আওয়ামী লীগের সদেস্য ও সাতলার ইউপি চেয়ারম্যান আ. খালেক আজাদের মৃত্যুতে চেয়ারম্যান পদটি শূন্য হয়। গত ১৪ সেপ্টেম্বর নির্বাচনী তফসিল ঘোষণা করা হয়।

২৩ সেপ্টেম্বর বুধবার রিটার্নিং অফিসারের নিকট মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ তারিখ, ২৬ সেপ্টেম্বর শনিবার মনোনয়নপত্র বাছাই, ৩ অক্টোবর শনিবার প্রার্থীতা প্রত্যাহার শেষ দিন নির্ধারণ করা হয়েছে।

জানা গেছে, উপনির্বাচনে সরকারি দল আওয়ামী লীগের প্রার্থী হতে মাঠে নেমেছেন একডজন। তাদের মধ্যে রয়েছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি ও সাতলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মৃত আ. খালেক আজাদের ছেলে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সদস্য মো. মশিউর রহমান মিয়া, সাতলা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ত্যাগী ও পরিচ্ছন্ন রাজনীতিবিদ মো. ইদ্রিস সরদার, ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি মো. আনোয়ার হোসেন বালী , সাবেক সংসদ সদস্য বাবু হরনাথ বাইনের বড় ছেলে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সহ-সভাপতি পরিমল কুমার বাইন অনু, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা ফজলুল হকের ছেলে মো. শাহীন হাওলাদার, উপজেলা যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মো. খাইরুল বাশার লিটন, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সদস্য সাবেক ছাত্রলীগ নেতা মো. মনিরুজ্জামান বিশ্বাস, মো. ফজলুল হক বালী।

আওয়ামী লীগের ডজনখানেক প্রার্থী প্রত্যাশীদের সম্পর্কে অনেকে বলছেন, দলের সুসমায়ে চেয়ারম্যান পদে প্রার্থীর ছড়াছড়ি’র মধ্যে অনেকেই ডামি প্রার্থী; যাদের টার্গেট মনোনয়নের নাম করে অন্য প্রার্থী কাছ থেকে অর্থসহ নানা সুবিধা আদায় করা।