এখনই এইচএসসি পরীক্ষার তারিখ ঘোষণা সম্ভব নয়

বৃহস্পতিবার, সেপ্টেম্বর ২৪, ২০২০

ঢাকা : এইচএসসি পরীক্ষার তারিখ ঘোষণা করা হবে বলে বিভিন্ন গণমাধ্যমে যে সংবাদ প্রকাশ করা হয়েছে তা নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় সাব কমিটির চেয়ারম্যান ও ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক জিয়াউল হক। তিনি বলেছেন, এখনই পরীক্ষার তারিখ ঘোষণা সম্ভব নয়।

আজ বৃহস্পতিবার (২৪ সেপ্টেম্বর) বিকেলে ঢাকা বোর্ডের সম্মেলন কক্ষে ১১টি শিক্ষা বোর্ড চেয়ারম্যানদের বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

বৈঠক সম্পর্কে তিনি বলেন, এটা আমাদের নর্মাল মিটিং ছিল। কে বলেছে, এ সভায় পরীক্ষার তারিখ ঘোষণা করবো? আমরা এখানে পরীক্ষার তারিখ ঘোষণা করবো না।

তিনি বলেন, এ ধরনের সংবাদে আমরা বিব্রতকর অবস্থায় পড়ি। একই সঙ্গে শিক্ষার্থীরাও বিব্রতকর অবস্থার মধ্যে পড়ে যায়। আমরা সিদ্ধান্ত নিলে সবার আগেই মিডিয়াকেই জানাই।

এ সময় সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে বোর্ড চেয়ারম্যান বলেন, আপনারা সঠিকভাবে আপনাদের দায়িত্ব পালন করুন। এখতিয়ারের বাইরের প্রশ্ন করলে আমরা বিব্রতকর অবস্থার মধ্যে পড়ি। পরীক্ষার তারিখ ঘোষণা আমাদের এখতিয়ারে নয়।

এদিকে মূল্যায়ন ছাড়া ৮ম থেকে ৯ম শ্রেণিতে অটো প্রমোশন হবে না বলে জানি ঢাকা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মু. জিয়াউল হক বলেছেন, মূল্যায়নের ক্ষেত্রে ১৫ মার্চ পর্যন্ত ক্লাস, সংসদ টিভির ক্লাস ও অনলাইন ক্লাসকে প্রধান্য দেয়া হবে।

চেয়ারম্যানের বক্তব্য, যদি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়, তবে ক্লাসেই পরীক্ষা হবে। যদি সেই অবস্থা তৈরি না হয়, তবে অনলাইনে মূল্যায়ন হতে পারে। কারণ, অনেক প্রতিষ্ঠানেই এখন অনলাইনে ক্লাস চলছে।

এইচএসসি পরীক্ষা ও স্কুল খোলাসহ শিক্ষা বিষয়ক বিভিন্ন সিদ্ধান্ত নিতে আজ বৈঠকে বসেন শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যানরা। বৃহস্পতিবার দুপুর সোয়া ২টায় ঢাকা শিক্ষাবোর্ডের সভাকক্ষে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত বৈঠকে সভাপতিত্ব করছেন আন্তঃশিক্ষা সমন্বয়ক বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মু. জিয়াউল হক।

বৈঠকের বিষয়টি নিশ্চিত করে বিষয়টি নিশ্চিত করে ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের কলেজ উপপরিদর্শক রবিউল আলম বলেন, চলতি বছরের এইচএসসি পরীক্ষা কীভাবে আয়োজন করা যায় সেই বিষয়ে আলোচনা হয়েছে বৈঠকে। এখানে সব বোর্ডের চেয়ারম্যানরা উপস্থিত ছিলেন।

প্রসঙ্গত, গত ১ এপ্রিল থেকে এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা শুরুর কথা ছিল। কিন্তু করোনার কারণে তা স্থগিত রয়েছে। কওমি মাদ্রাসা খুলে দিলেও অন্যসব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে আগামী ৩ অক্টোবর পর্যন্ত ছুটি রয়েছে।