নেইমারের হাতেই পিএসজির স্বপ্নের মশাল

বৃহস্পতিবার, আগস্ট ১৩, ২০২০

স্পোর্টস ডেস্ক : চ্যাম্পিয়ন্স লিগ উপহার দেওয়ার জন্য বার্সেলোনা থেকে ব্রাজিলিয়ান সুপার স্টার নেইমার ডি সিলভা জুনিয়রকে ২২০ মিলিয়ন ইউরো দিয়ে কিনে নিয়েছিল পিএসজি। তবে গত তিন-চার মৌসুমে সেই আশা আলোর মুখ দেখেনি। দ্বিতীয় রাউন্ড থেকেই বার বার ফিরে যেতে হচ্ছিল পিএসজিকে। দলটির সর্বোচ্চ দৌড় ছিল কোয়ার্টার ফাইনাল।

তবে এবার সেমিফাইনালে ওঠার দারুণ সম্ভাবনা রয়েছে পিএসজির সামনে। আর এই সুযোগকে পুরোপুরি কাজে লাগানোর জন্য পিএসজির এখন প্রধান অস্ত্রই হচ্ছেন নেইমার। আজ বাংলাদেশ সময় রাত ১টায় শুরু হবে ম্যাচটি। সরাসরি দেখাবে সনি টেন টু।

এই ম্যাচের মধ্য দিয়ে শুরু হয়ে ২৪ আগস্টের মধ্যে শেষ করে দেওয়া হবে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ। বিশ্বকাপের আদলেই কোয়ার্টার ফাইনাল থেকে ম্যাচগুলো অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। প্রথম ম্যাচেই মুখোমুখি হতে চলেছে ফরাসি ক্লাব পিএসজি এবং ইতালিয়ান ক্লাব আটলান্টা।

তবে পিএসজির জন্য আটলান্টা আসলেই সারপ্রাইজ প্যাকেজ। যদিও আজ এমন দুটি দল মুখোমুখি হচ্ছে, যাদের মধ্যে আসলেই খুব একটা পার্থক্য নেই। কিন্তু একা নেইমারই শুধু ব্যতিক্রম। ম্যাচ তারকা কিংবা মাঠের পারফরম্যান্স সবার চাইতে ব্যতিক্রম নেইমারই। বলা যায়, নেইমারের হাতেই পিএসজির স্বপ্নের মশাল।

পিএসজি থেকে ব্রাজিলিয়ান এই তারকাকে বছরে দেওয়া হয় ৩৬ মিলিয়ন ইউরো। প্যারিসের বিখ্যাত পত্রিকা এল ইকুইপে এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, বোনাস এবং অন্য সব সুযোগ-সুবিধা বাদ দিয়েই বছরে নেইমারকে দেওয়া হয় ৩০ মিলিয়ন ইউরো।

এতবেশি টাকা ব্যায় করার পর এখন পর্যন্ত নেইমার পিএসজিকে সর্বোচ্চ কোয়ার্টার ফাইনাল পর্যন্তই নিতে পেরেছেন। তবে, এবারই নেইমারের সামনে বড় সুযোগ, দলকে প্রথমবারের মতো সেমিফাইনালে তুলে দেওয়ার। এ দিকে, আটলান্টার সামনেও বড় সুযোগ, প্রথমবারের মতো চ্যাম্পিয়ন্স লিগে এসে চমক দেখানোর অপেক্ষায়।

এ দিকে, লা গ্যাজেট্টা দেল্লো স্পোর্ট রিপোর্ট জানিয়েছে, আটলান্টার সর্বোচ্চ পারিশ্রমিকপ্রাপ্ত ফুটবলার হচ্ছেন অধিনায়ক আলেজান্দ্রো ‘পাপু’ গোমেজ, ডুবান জাপাটা এবং লুইস মুরিয়েল। তারা আয় করেন বছরে ১.২ মিলিয়ন ইউরো করে। এছাড়া বোনাস হিসেবে তারা পান মাত্র ১.৮ মিলিয়ন ইউরো। সব মিলিয়ে মাত্র ৩ মিলিয়ন ইউরো।

আর আটলান্টার পুরো দলের ফুটবলারদের বাৎসরিক আয় ৩৩ থেকে ৩৬ মিলিয়ন ইউরো। যা একাই আয় করেন নেইমার।

পিএসজির অন্য ফুটবলারদের মধ্যে কিলিয়ান এমবাপে আয় করেন বছরে ১৬ মিলিয়ন ইউরো, থিয়াগো সিলভা আয় করেন ১১ মিলিয়ন ইউরো। পিএসজির তিন স্ট্রাইকার নেইমার, এমবাপে এবং মাউরো ইকার্দি একসঙ্গে আয় করেন ৫৫ মিলিয়ন ইউরো। আর আটলান্ডার সর্বোচ্চ আয় করা তিন ফুটবলার জাপাতা, মুরিয়েল এবং গোমেজের একসঙ্গে আয় হচ্ছে মাত্র ৫ মিলিয়ন ইউরো।