চমক হয়ে আসছে ‘আইফোন ১২’

বৃহস্পতিবার, জুলাই ৩০, ২০২০

প্রতিনিয়ত প্রযুক্তি আপডেট হচ্ছে। ফলে মোবাইল ফোনসেটেও যুক্ত হচ্ছে নতুন নতুন ফিচার। আর এক্ষেত্রে মার্কিন প্রযুক্তিপণ্য নির্মাতা প্রতিষ্ঠান অ্যাপল একধাপ এগিয়েই থাকে। ফলে নতুন আইফোন বাজারে আসা নিয়ে অ্যাপল প্রেমীদের অপেক্ষা থাকে সব সময়। তবে এ বছর করোনাভাইরাস পরিস্থিতির কারণে অবস্থা ভিন্ন।

তবে অ্যাপলের পক্ষ থেকে আইফোন প্রেমীদের জন্য ‘চমক’ অপেক্ষা করছে। এ বছরের সেপ্টেম্বরেই নতুন চমক হিসেবে আসতে পারে আইফোন ১২। নতুন স্মার্টফোনে বেশ কিছু নতুন ফিচার চমকে দিতে পারে।

বাজার বিশ্লেষকরা বলছেন, নতুন আইফোনের সবচেয়ে বড় চমক থাকবে ক্যামেরায়। অ্যাপলের আইফোন ১২ সিরিজে উচ্চমান সম্পন্ন সেমকো ও সানি অপটিক্যাল লেন্স ব্যবহার করা হচ্ছে। আর এ তথ্য প্রকাশ করেছেন অ্যাপল পণ্য সম্পর্কে সফল পূর্বাভাস দেওয়ার জন্য বিখ্যাত হয়ে ওঠা বিশ্লেষক মিং-সি কুয়ো। তিনি বলেছেন, নতুন লেন্সের কারণে ফোনের ক্যামেরা পারফরম্যান্স আরও উন্নত হবে এবং অটোফোকাস সুবিধা বাড়বে।

সেমকো মূলত কোরিয়ার কোম্পানি আর সানি অপটিক্যালের প্রধান কার্যালয় চীনে। এ দুটি প্রতিষ্ঠানই সেরা লেন্স সরবরাহকারী হিসেবে পরিচিত।

অ্যাপলের পরবর্তী ফোন অর্থাৎ, ২০২২ সালের ফোনের জন্য সেমকো পেরিস্কোপের মতো বিশেষ টেলিফটো লেন্স তৈরিতে কাজ করতে পারে। বর্তমানে চীনের হুয়াওয়ের ফোন এ ধরনের লেন্স রয়েছে। কুয়ো বলছেন, এ বছরের আইফোনের লেন্সে পরিবর্তন আনবে অ্যাপল। তবে অ্যাপলের পক্ষ থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে কিছুই বলা হয়নি।

গুঞ্জন রয়েছে, নতুন আইফোন ১২ দুটি সংস্করণে বাজারে আসতে পারে। একটি হবে ৬ দশমিক ১ ইঞ্চি স্ক্রিন সুবিধার ও আরেকটি ৬ দশমিক ৭ ইঞ্চি স্ক্রিন সুবিধার। দুটি সংস্করণেই ওএলইডি স্ক্রিন প্যানেল ব্যবহার করা হতে পারে। দুটি ফোনের ৬ জিবি র‌্যাম ও আরও বড় ব্যাটারি যুক্ত হতে পারে।

প্রতিবছরই নতুন কিছু পণ্যের সঙ্গে নতুন আইফোন বাজারে ছাড়ে মার্কিন প্রযুক্তিপণ্য নির্মাতা প্রতিষ্ঠান অ্যাপল। চলতি বছরে করোনা ভাইরাস পরিস্থিতির কারণে নতুন আইফোন আসতে দেরি হবে বলে ধারণা করা হচ্ছিল। তবে গুঞ্জন উঠেছে, বাজারে নতুন আইফোন ছাড়তে খুব বেশি দেরি করতে রাজি নয় অ্যাপল। ৮ সেপ্টেম্বরেই ঘোষণা আসতে পারে নতুন আইফোনের।

অ্যাপলের পণ্য সম্পর্কে তথ্য প্রকাশ করে টুইটারে পরিচিতি পেয়েছে আই হ্যাক টু অ্যাকাউন্টটি। ওই অ্যাকাউন্ট থেকেই অ্যাপলের নতুন পণ্য বাজারে আসার তারিখ ও পরিকল্পনার কথা জানানো হয়েছে। অ্যাপল পণ্য সম্পর্কে তথ্য ফাঁস করে ওই অ্যাকাউন্ট থেকে বলা হয়েছে, অ্যাপল এবারে নতুন আইফোন আনতে জমকালো কোনো আয়োজন রাখছে না। এবারে ভার্চ্যুয়াল অনুষ্ঠানে নতুন বছরের নতুন আইফোন বাজারে আনার ঘোষণা দেওয়া হবে। একই সঙ্গে অ্যাপলের ওয়াচ সিরিজ ৬-এর ঘোষণাও আসতে পারে। এরপর ২৭ অক্টোবর আরেক অনুষ্ঠানে আইপ্যাড প্রো ও নতুন ম্যাকবুকের ঘোষণা দিতে পারে প্রতিষ্ঠানটি। এবারে নতুন ম্যাকবুকে ইনটেলের চিপসেট বাদ দিয়ে নিজস্ব সিলিকন চিপসেট ব্যবহার করতে পারে অ্যাপল।

প্রযুক্তি বিশ্লেষকেরা ধারণা করছেন, এ বছর নতুন আইফোন মডেলকে আইফোন ১২ বলা হতে পারে। এবারে নতুন আইফোন বক্সের সঙ্গে চার্জার বা এয়ারপড পাওয়া যাবে না। নতুন আইফোনে ৫জি সুবিধা ও ওএলইডি স্ক্রিনের কারণে বাড়তি দাম রাখবে অ্যাপল। কয়েক সপ্তাহ ধরেই প্রযুক্তিবিষয়ক বিভিন্ন ওয়েবসাইটে অ্যাপলের নতুন আইফোন ঘিরে নানা তথ্য প্রকাশ করা হচ্ছে। বেশির ভাগ প্রতিবেদনে আইফোনের সঙ্গে চার্জার না পাওয়ার ইঙ্গিত দেওয়া হয়েছে। সাম্প্রতিক বিশ্লেষণ ও অ্যাপলের সাম্প্রতিক গ্রাহক জরিপেও সে আভাস মিলেছে।

অ্যাপল নতুন আইফোন নিয়ে আগেভাগে কোনো তথ্য প্রকাশ করে না। তাই নতুন আইফোন ঘিরে বরাবরই নতুন পূর্বাভাস ও গুঞ্জন চলতে থাকে। অনেক ক্ষেত্রে এসব গুঞ্জনের মিল পাওয়া যায়। করোনা ভাইরাস পরিস্থিতির কারণে অন্যহ মোবাইল ফোনের সঙ্গে টক্কর দিতে এবারের নতুন আইফোনের দাম কম হতে পারে বলে গুঞ্জন রয়েছে। গত মে মাসে নতুন আইফোনের দামের তথ্য। ফাঁস করেছেন তথ্য্ প্রযুক্তি বিশ্লেষক জন প্রসের। তাঁর দাবি, আইফোন ১২ মডেল ৬৪৯ মার্কিন ডলার দামে পাওয়া যাবে। নতুন আইফোন সংস্করণ ভেদে ৬৪৯ মার্কিন ডলার থেকে এক হাজার ৯৯ ডলারে কিনতে পারবেন গ্রাহক। অর্থাৎ, বর্তমান বিশ্ব পরিস্থিতি মোকাবিলায় আইফোনের দাম কমিয়ে দিচ্ছে অ্যা পল।