এনআইডির তথ্য যাচাই: আরও ৮ প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে ইসির চুক্তি

বৃহস্পতিবার, জুলাই ১৬, ২০২০

ঢাকা : ব্যাংক, টেলিফোন অপারেটর, মোবাইল ব্যাংকিং প্রতিষ্ঠানসহ সরকারি-বেসরকারি আরও আটটি প্রতিষ্ঠানকে ‘ইলেক্ট্রোনিক্যালি নো ইয়োর ক্লায়েন্ট’ সেবা দিতে চুক্তিবদ্ধ হয়েছে বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন।

বৃহস্পতিবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, এই চুক্তির ফলে এখন থেকে এসব প্রতিষ্ঠান নির্বাচন কমিশনের জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন অনুবিভাগের তথ্য ভাণ্ডারে রক্ষিত দেশের নাগরিকদের তথ্য যাচাই করতে পারবে।

প্রতিষ্ঠানগুলো হল- বাংলাদেশ ডেভেলপমেন্ট ব্যাংক লিমিটেড, বাংলাদেশ টেলিকমিউনিকেশন্স কোম্পানি লিমিটেড (বিটিসিএল), ইন্টার ক্লাউড লিমিটেড, বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি), রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (রাজউক), প্রগতি সিস্টেমস লিমিটেড (সিওরক্যাশ), চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষ এবং ভূমি মন্ত্রণালয়।

এনআইডি উইংয়ের অফিসার ইনচার্জ (কমিউনিকেশনস) স্কোয়াড্রন লিডার কাজী আশিকুজ্জামান বলেন, এই চুক্তির অংশ হিসেবে জাতীয় তথ্য ভাণ্ডারে সংরক্ষিত ব্যক্তির নাম, ঠিকানাসহ বিভিন্ন তথ্য যাচাই করে সঠিক ব্যক্তিকে শনাক্ত করে দেবে নির্বাচন কমিশন।

“ভূমি বিরোধ, ভূমির মালিকানা শনাক্ত ও নামজারির পাশাপাশি এ সংক্রান্ত দীর্ঘদিনের জটিলতা নিরসনে এটা সহায়ক হবে। তাছাড়া আমদানি-রপ্তানির ক্ষেত্রে সঠিক আমাদানি ও রপ্তানিকারক, সিঅ্যান্ডএফ এজেন্টসহ এ খাতের সংশ্লিষ্ট সঠিক ব্যক্তিকে চিহ্নিত করতে করা যাবে।”

২০১২ সালের ২৫ জানুয়ারি জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের সঙ্গে চুক্তির মধ্য দিয়ে ই-কেওয়াইসি সেবা চালু করে ইসির জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন অনুবিভাগ।

কাজী আশিকুজ্জামান বলেন, বর্তমানে ব্যাংক, বীমা, মোবাইল অপারেটরসহ দেশের ১৩৫টি সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানকে এই সেবা দিচ্ছেন তারা। এর বিনিময়ে গত অর্থবছরে ৩২ কোটি টাকা সরকারি কোষাগারে জমা দিয়েছে এনআইডি উইং।