করোনার নমুনা নেয়ার স্থানেই ফি দিতে হবে

বৃহস্পতিবার, জুলাই ২, ২০২০

ঢাকা : করোনা ভাইরাস পরীক্ষায় স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্যসেবা বিভাগ ইউজার ফি’র হার নির্ধারণ করে একটি পরিপত্র জারি করেছে। করোনা ভাইরাসের নমুনা যে স্থান থেকে সংগ্রহ করা হবে সেখান থেকেই সরকার নির্ধারিত ফি ক্যাশ মেমোর মাধ্যমে নেয়া হবে।

আজ বৃহস্পতিবার (২ জুলাই) করোনা ভাইরাস সংক্রান্ত নিয়মিত হেলথ বুলেটিনে এ তথ্য জানান স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা।

তিনি বলেন, সকল উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা, সিভিল সার্জন, বিভাগী পরিচালক এবং সকল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ককে আমরা জানিয়েছি, যে স্থানে নমুনা সংগৃহীত হবে সেই স্থানেই সরকারি ফি ক্যাশ মেমোর মাধ্যমে গ্রহণ করা হবে। এরপর তা সরকারি কোষাগারে জমা হবে।

ডা. নাসিমা সুলতানা বলেন, আপনারা ইতিমধ্যেই জেনেছেন, কোভিড-১৯ পরীক্ষা-নিরীক্ষার ইউজার ফি’র হার নির্ধারণ করে একটি পরিপত্র জারি করা হয়েছে। বুথ থেকে সংগৃহীত নমুনা ২০০ টাকা, বাসা থেকে সংগৃহীত নমুনা ৫০০ টাকা এবং হাসাপাতালের ভর্তির রোগীর নমুনা ২০০ টাকা।

সকলের প্রতি দৃষ্টি আকর্ষণ করে তিনি বলেন, চিকিৎসা সুবিধা বিধিমালা ১৯৭৪ এর আওতায় সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীগণের চিকিৎসা সংক্রান্ত সকল সুযোগ-সুবিধা বহাল থাকবে। বীর মুক্তিযোদ্ধা, দুঃস্থ ও গরিব রোগীদের চিকিৎসা ও রোগ নির্ণয় পরীক্ষা-নিরীক্ষা সংক্রান্ত সরকারি আদেশ বহাল থাকবে।

ডা. নাসিমা সুলতানা আরও বলেন, তবে বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের ক্ষেত্রে আমরা বলেছি যে বেসরকারি স্বাস্থ্যসেবা পরীক্ষাগার বা যারা পরীক্ষা করছেন তারা বাসায় গিয়ে নমুনা সংগ্রহ করলে এক হাজার টাকা এবং পরীক্ষার ফি সাড়ে তিন হাজার টাকা নেবেন।

‘বাসায় নমুনা সংগ্রহ ও পরীক্ষার ফি একসঙ্গে করলে সাড়ে চার হাজার টাকা। হাসপাতাল বা ডায়াগনস্টিক সেন্টারে নমুনা দিলে এই পরীক্ষার ফি কেবল সাড়ে তিন হাজার টাকা।’

তিনি বলেন, যে স্থানে নমুনা সংগ্রহ করা হবে, সেই স্থানেই এই সরকারি ফি ক্যাশ মেমোর মাধ্যমে গ্রহণ করা হবে এবং পরিপত্রে সরকারি কোষাগারের যে নম্বর দেয়া আছে, সেখানে জমা হবে। অ্যাপ তৈরি হলে সেটির মাধ্যমেই তা সরকারি কোষাগারে জমা হবে বলে নাসিমা সুলতানা জানান।