২৬ ঘণ্টা পর উদ্ধার বুড়িগঙ্গায় ডুবে যাওয়া লঞ্চ

মঙ্গলবার, জুন ৩০, ২০২০

ঢাকা : রাজধানীর শ্যামবাজার এলাকায় বুড়িগঙ্গা নদীতে লঞ্চ ডুবিতে প্রাণহানির ঘটনায় ধাক্কা দেয়া লঞ্চ ময়ূর-২ এর মালিক মোসাদ্দেক হানিফ সোয়াত ও চালকসহ ৭ জনের নামে মামলা করেছে নৌ পুলিশ।

সোমবার দিবাগত গভীর রাতে দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানায় মামলাটি করা হয়।

আজ মঙ্গলবার সকালে দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহ জামান মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, এই মামলায় এখন পর্যন্ত কোনো আসামিকে গ্রেপ্তার করা সম্ভব হয়নি। চালকসহ সকলে পলাতক রয়েছে। পুলিশ আসামিদের ধরতে অভিযান শুরু করেছে। লঞ্চটিকে জব্দ করে পুলিশের হেফাজতে রাখা হয়েছে।

এর আগে সোমবার সোয়া ৯টার দিকে ঢাকার শ্যামবাজারের কাছে বুড়িগঙ্গা নদীতে এক লঞ্চের ধাক্কায় আরেকটি ছোট লঞ্চ ডুবে অন্তত ৩২ জনের মৃত্যু হয়েছে।

এমএল মর্নিং বার্ড নামের ওই লঞ্চটি মুন্সিগঞ্জের কাঠপট্টি থেকে যাত্রী নিয়ে সদরঘাটের দিকে আসছিল। তবে লঞ্চডুবির প্রায় ১৩ ঘণ্টা পর রাত ১০টার দিকে এক ব্যক্তিকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে। নদীতে ভেসে ওঠার পর কোস্ট গার্ডের কর্মীরা তাকে তুলে নেন। উদ্ধার করার পর তিনি অচেতন হয়ে পড়েন। সঙ্গে সঙ্গে হাসপাতালে নেয়া হলে তার জ্ঞান ফিরে আসে।